শিরোনাম

১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত : কুষ্টিয়া শহর বাইপাস সড়ক শিগগিরই উদ্বোধন

kushtia bipusখালিদ হাসান সিপাই, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া শহর বাইপাস সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিগগিরই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সড়কটি উদ্বোধন করবেন বলে জানা গেছে। সড়কটি উদ্বোধনের মাধ্যমে এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী পূরণ হচ্ছে।
কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানায়, ২০১৬ সালে ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে কুষ্টিয়া শহর বাইপাস সড়ক নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৭ কিলোমিটার সড়কের কাজ শেষ হয়েছে। নবনির্মিত বাইপাসটি বটতৈল থেকে শুরু হয়ে বারখাদা ত্রিমোহনীতে গিয়ে শেষ হয়েছে। বাইপাসের শুরু ও শেষ প্রান্তে দুটি গোল চত্বর নির্মাণ করা হয়েছে। বটতৈল প্রান্তের গোল চত্বরের দু’দিকে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক- যার একদিক চলে গেছে খুলনা অভিমুখে, অপরপ্রান্ত শহরমুখে। গোল চত্বরের আরেক পাশের আঞ্চলিক মহাসড়ক গেছে চুয়াডাঙ্গার দিকে। অন্যদিকে বাইপাসের শেষ প্রান্ত বারখাদা গোল চত্বর থেকে জাতীয় মহাসড়কটি ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জের দিকে এবং অন্যদিক গিয়েছে কুষ্টিয়া শহর ও বাইপাস অভিমুখে। দেশের উত্তরবঙ্গের সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার হবে এ বাইপাস সড়ক।
কুষ্টিয়া শহর বাইপাসের ৭ দশমিক ৩ মিটার প্রশস্তের ডাবল লেনবিশিষ্ট মূল সড়ক ৪ কিলোমিটার এবং সাড়ে ৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে বাইপাস সড়ক। ওই সড়কের মাঝে একটি পিসি গার্ডার সেতু ও ২১টি আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে।
আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপির প্রচেষ্টায় বাইপাস সড়কটির কার্যক্রম এগিয়ে চলে।
কুষ্টিয়া সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, কুষ্টিয়া শহর বাইপাসের ৭ দশমিক ৩ মিটার প্রশস্তের ডাবল লেনবিশিষ্ট মূল সড়ক ৪কিলোমিটার এবং সাড়ে ৬ কিলোমিটার দৈঘ্যের বাইপাস সড়ক। উক্ত সড়কেরমাঝে একটি পিসি গার্ডার সেতু ও ২১টি আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণকরা হয়েছে। বাইপাসের প্রায় সকল কাজ সমপন্ন হয়েছে। তা এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে।
এলাকাবাসী জানায়, দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের মধ্যে চলাচলকারী শত শত দূরপালার যানবাহন কুষ্টিয়া শহরের মধ্যে দিয়ে চলাচল করে। এতে শহরবাসীর স্বাভাবিক চলাচল যেমন বাধাগ্রস্থ হয় তেমনি স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ শহরবাসীকে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই সড়কে চলাচল করতে হচ্ছে।
কুষ্টিয়ার উপর দিয়ে ১৯৮৮ সালে তৈরী হওয়া একটি মাত্র মহাসড়ক দিন দিন ভয়াবহ ব্যাস্ত হয়ে পড়ে। কুষ্টিয়ায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারী কলেজসহ বিভিন্ন বড় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠায় অনেক মানুষ এ জেলায় আসে যায়। এছাড়াও মহাসড়কটির পাশে কুষ্টিয়া জিলা স্কুল, কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজ, চৌড়হাস মোড়ে চৌড়হাস মুকুল সংঘ প্রাথমিক বিদ্যালয়, প্রতীতি বিদ্যালয়, সড়ক সংলগ্ন এলাকায় গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা কেন্দ্র, বারখাদা আর্দশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ডিসি কোর্ট, জজ কোর্টসহ গুরুত্বপূর্ন অফিস-আদালত রয়েছে। এসব কারণে প্রতিনিয়তই ছোট-বড় দূর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া কুষ্টিয়া চিনিকলে আখ মাড়াই মৌসুম শুরু হলে আখ বহনকারী লরিগুলো এই সড়ক দিয়েই চলাচল করে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়রে ৩০ টিরও বেশি গাড়ী কুষ্টিয়ায় শহরের উপর দিয়ে যায় আসে। তার উপর শহরের ভেতর দিয়ে বয়ে গেছে রেলপথ। ফলে ওই সময়ে যানজট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করে।
এছাড়াও, উত্তরবঙ্গের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ মংলা পোর্টসহ সমগ্র দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক  যোগাযোগের রুট এই কুষ্টিয়া। ভেড়ামারায় নির্মিত লালন শাহ সেতু হওয়ায় শহরের এ সড়কে যানবাহনের চাপ আরও বেড়ে যায়।
ফলে দল মত নির্বিশেষে কুষ্টিয়াবাসীর প্রাণের দাবী ছিল এই বাইপাস সড়ক। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি স্থানীয় বাস-ট্রাক মালিকগণ দীর্ঘ দিন থেকে বাইপাস সড়ক নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসলেও কোন ফল হয়নি।
বিএনপির সরকারের সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা ২০০৮ সালে কুষ্টিয়া শহরতলীর বটতৈলে ভুমি অধিগ্রহন এবং অর্থ বরাদ্দ ছাড়াই কুষ্টিয়া বাইপাস সড়ক নির্মানের ফলক উন্মোচন করেছিলেন।
বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে জমি অধিগ্রহনসহ বিভিন্ন কাজ হাতে নেয়। মাপযোগ ও জমির মালিকদের ৩ ধারা ও সর্বশেষ ৬ ধারায় চিঠি দিয়ে থেমে ছিল কাজ। সেগুলো সমাধান করে বাইপাস সড়কের কাজ এগিয়ে নেয়।
বিগত সরকারের প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রী পরিষদের সদস্যরা  কুষ্টিয়ার এই বাইপাস সড়কটি দ্রুতত নির্মাণ করা হবে বলে কুষ্টিয়াতে বিভিন্ন সভা সমাবেশে ঘোষনা দিলেও  সেটি আলোর মুখ দেখতে পায়নি।
এলাকাবাসিরা জানায়, নির্বাচনের আগে এবং পরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া একাধিক বার কুষ্টিয়ার বটতৈল থেকে বারখাদা ত্রিমোহনী পর্যন্ত বাইপাস সড়কটি নির্মানের প্রতিশ্র“তি দিয়ে বলেছিলেন, তাদের সরকারের সময়ে যত দ্রুত সম্ভব কুষ্টিয়ার এই বাইপাস সড়কটি নির্মান সম্পন্ন করা হবে। অবশেষে আওয়ামীলীগ সরকারের সময়েই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্র“তি বাস্তবায়নে বাইপাস সড়কটি নির্মাণ হলো। কুষ্টিয়াবাসীসহ এলাকাবাসীর দাবী অবশেষে পূরণ হলো।

158 total views, 4 views today

181,806 total views, 740 views today

প্রধান খবর

  • বাংলাদেশ আজ জয় দিয়েই ওয়ানডে সিরিজ শুরু করতে চায়

    ঢাকা অফিস: ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ। এবার দলটির বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলেতে মাঠে নামবে টাইগাররা। আজ থেকে শুরু হওয়া তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে জয় দিয়েই শুরু করতে চায় বাংলাদেশ। অবশ্য মাঠে নামার আগে মানসিকভাবে এগিয়ে বাংলাদেশ দলই। কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ জয়ের সুখ স্মৃতি নিয়েই ওয়ানডে সিরিজ শুরু করবে টাইগাররা। আরো একটি কারণে এগিয়ে আছে টাইগাররা। টেস্টে না থাকলেও ওয়ানডে সিরিজে দলের হয়ে মাঠে নামবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও দেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টায় শুরু হবে প্রথম ওয়ানডে।ddddd
    তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচেই জয়ের টার্গেট বাংলাদেশের। ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আজ আত্মবিশ্বাসের সাথেই ওয়ানডে সিরিজ শুরু করবে টাইগাররা। ২০১২ সালে দেশের মাটিতে ও সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজ এবং চলতি সফরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ জয়ের সুখস্মৃতি রয়েছে টাইগারদের। তাই এমন সুখস্মৃতি নিয়ে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে নামবে মাশরাফির দল। ২০১২ সালে দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিলো টাইগাররা। পাঁচ ম্যাচের ঐ সিরিজে ৩-২ ব্যবধানে জিতে নেয় বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজটি জিতেছে বাংলাদেশ। চলতি বছরের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিন ম্যাচের সিরিজটি ২-১ ব্যবধানে জিতে মাশরাফির দল। এছাড়া  চলতি সফরে টেস্ট ফরম্যাটের দুই ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইওয়াশ করেছে সাকিব আল হাসানের দলটি। একচেটিয়া পারফরমেন্স করে দু’টি টেস্টই জিতে নেয় বাংলাদেশ। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে ৬৪ রানে এবং ঢাকায় দ্বিতীয় ম্যাচে ইনিংস ও ১৮৪ রানে জয় পায় টাইগাররা। এই সিরিজ দিয়ে আবারো ওয়ানডেতে ফিরছেন দলের দুই সেরা তারকা সাকিব-তামিম। এশিয়া কাপ চলাকালীন ইনজুরিতে পড়েছিলেন তারা। তবে ইনজুরি থেকে সুস্থ হয়ে ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছেন সাকিব। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। ব্যাট-বল হাতে উজ্জল ছিলেন সাকিব। ব্যাট হাতে ১১৫ রান ও বল হাতে ৯ উইকেট শিকার করেন সাকিব। ফলে সিরিজ সেরাও হন তিনি। সাকিবের চিন্তা দূর হবার পর তামিমকে নিয়ে চিন্তিত ছিলো বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশের চিন্তা মুছে দেন তামিমও। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ফিরে সেঞ্চুরি করেই নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেন। প্রস্তুতি ম্যাচে জয়ও পায় বাংলাদেশ। অপর দিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশ সফরটা মোটেও ভালো হয়নি। কারণ টেস্টে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে দলটি। এবার ওয়ানডে সিরিজ। ওয়ানডে সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে নেতৃত্ব দিবেন রোভম্যান পাওয়েল। নিয়মিত অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ইনজুরির কারণে বাংলাদেশ সফরে আসেননি। তাই টেস্ট সিরিজে অনিয়মিত অধিনায়কের অধীনে খেলেছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টেস্ট ফরম্যাটে ক্যারিবীদের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ওপেনার ক্রেইগ ব্রাফেট। টেস্টে হারলেও ওয়ানডে সিরিজে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া থাকবে দলটি। তাই জয়ের আত্মবিশ্বাসে থাকলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে সর্তক বাংলাদেশ। সিরিজটি বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলে মনে করেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও কোচ স্টিভ রোডস।
    বাংলাদেশ দল : মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, মোহাম্মদ মিথুন, সাইফ উদ্দিন, আবু হায়দার ও আরিফুল হক।
    ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল : রোভম্যান পাওয়েল (অধিনায়ক), মারলন স্যামুয়েলস, ড্যারেন ব্রাাভো, রোস্টন চেজ, শাই হোপ, দেবেন্দ্র বিশু, চন্দরপল  হেমরাজ, শিমরন হেটমায়ার, কেমো পল, কাইরন পাওয়েল, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন, কার্লোস ব্রাফেট, কেমার  রোচ, সুনীল অ্যামব্রিস ও ওশানে টমাস।

    18,250 total views, 415 views today

আজকের খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : খালিদ হাসান সিপাই.

নির্বাহী সম্পাদক : মাজহারুল হক মমিন।

বড় জামে মসজিদ মার্কেট, এন এস রোড কুষ্টিয়া।

০১৭১৬২৬৮৮৫৮, E-mail: Kushtiardiganta@gmail.com .