শিরোনাম

দেখুন মনোনয়নপত্র বিক্রি করে বিএনপির আয় কত টাকা

কুষ্টিয়ার দিগন্ত অনলাইন ডেস্ক:45852362_2219234198346046_2500995688804909056_nআসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আগ্রহীদের মাঝে পাঁচ দিনে চার হাজার ৫৮০টি দলীয় মনোনয়নপত্র বিক্রি করে দুই কোটি ২৯ লাখ টাকা আয় করেছে বিএনপি।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, যারা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তারা তা যথাযথভাবে পূরণ করে জমা দিচ্ছেন। ‘আমরা ফরম গ্রহণ করছি এবং তা আজ রাত পর্যন্ত চলবে।’

কতজন মনোনয়ন প্রত্যাশী ফরম জমা দিয়েছেন তা পরে সংবাদিকদের জানানো হবে বলে জানান তিনি।

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্য তিনটি মনোনয়নপত্র কেনার মধ্য দিয়ে গত ১২ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু করে দলটি।

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রতিটি ফরম কিনতে পাঁচ হাজার এবং জমা দেয়ার সময় আরও ২৫ হাজার টাকা দিতে হচ্ছে।

মোট বিক্রিত চার হাজার ৫৮০টি ফরমের মধ্যে প্রথম দিন সোমবার এক হাজার ৩২৬টি, মঙ্গলবার এক হাজার ৮৯৬টি, বুধবার ৪৮৮টি, বৃহস্পতিবার ৪০২টি এবং শুক্রবার ৪৬৮টি ফরম বিক্রি হয়েছে।

রিজভী বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে গঠিত দলের মনোনয়ন বোর্ড রবিবার সকাল থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়া শুরু করবে।

তিনি জানান, প্রথম দিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত রংপুর বিভাগের এবং দুপুর আড়াইটা থেকে রাজশাহী বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত খুলনা বিভাগের, মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে চট্টগ্রাম বিভাগের এবং একই দিন বিকাল ৩টা থেকে কুমিল্লা ও সিলেট অঞ্চলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সাক্ষাৎকার দেবেন।

বুধবার সকাল ৯টা থেকে ময়মনসিংহ বিভাগের এবং বিকাল ৩টা থেকে ফরিদপুর অঞ্চলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা গত ১২ নভেম্বর সংসদ নির্বাচনের নতুন তফসিল ঘোষণা করেন, যাতে ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ৩০ ডিসেম্বর ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। আর মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে ১৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত।-ইউএনবি নিউজ

114 total views, 2 views today

121,802 total views, 583 views today

প্রধান খবর

  • আজ ৯ ডিসেম্বর কুমারখালী হানাদার মুক্ত দিবস

    কুমারখালি প্রতিনিধি : ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে কুমারখালীর মুক্তিযোদ্ধারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন এবং কুমারখালীকে হানাদার মুক্ত করেছিলেন।

    ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর সকালে মুক্তিযোদ্ধারা পরিকল্পিত ভাবে কুমারখালীতে প্রবেশ করে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুন্ডুপাড়ার রাজাকারদের ক্যাম্প আক্রমণ করেন। রাজাকার কমান্ডার ফিরোজ বাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের তুমুল যুদ্ধ শুরু হয়।

    এ খবর কুষ্টিয়া জেলা শহরে অবস্থানরত পাক-সেনাদের কাছে পৌঁছালে তারা দ্রুত কুমারখালীতে এসে গুলিবর্ষণ করতে থাকলে পুরো শহর আতঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পড়ে। এবং মুক্তিযোদ্ধারা তাদের অkkkkপর্যাপ্ত অস্ত্র ও সংখ্যায় কম থাকায় শহর ত্যাগ করেন।

    এ সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকাররা কুমারখালী শহরজুড়ে হত্যাযজ্ঞ, অগ্নিসংযোগ ও লুটতরাজ শুরু করে।৭ ডিসেম্বরের যুদ্ধে পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা তোসাদ্দেক হোসেন ননী মিয়া শহীদ হন।
    পাকিস্তানী হানাদারদের হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়েছিলেন মুক্তিকামী বীর বাঙালী সামসুজ্জামান স্বপন, সাইফুদ্দিন বিশ্বাস, আব্দুল আজিজ মোল্লা, শাহাদত আলী, কাঞ্চন কুন্ডু, আবু বক্কার সিদ্দিক, আহমেদ আলী বিশ্বাস, আব্দুল গনি খাঁ, সামসুদ্দিন খাঁ, আব্দুল মজিদ ও আশুতোষ বিশ্বাস মঙ্গল।

    পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধারা সুসংগঠিত হয়ে ৯ ডিসেম্বর পাকবাহিনীর ক্যাম্পে (বর্তমানে কুমারখালী উপজেলা পরিষদ) আক্রমণ করেন।

    দীর্ঘসময় যুদ্ধের পর পাকিস্তানি বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণের কাছে টিকতে না পেরে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । ৯ ডিসেম্বরের যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে রাজাকার কমান্ডার খুশি মারা যায়।

    এইদিন কুমারখালী শহর হানাদার মুক্ত হওয়ার পর সর্বস্তরের জনতা এবং মুক্তিযোদ্ধারা রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল বের করেন।

    6,795 total views, 505 views today

আজকের খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : খালিদ হাসান সিপাই.

নির্বাহী সম্পাদক : মাজহারুল হক মমিন।

বড় জামে মসজিদ মার্কেট, এন এস রোড কুষ্টিয়া।

০১৭১৬২৬৮৮৫৮, E-mail: Kushtiardiganta@gmail.com .