শিরোনাম
hhhhh-23
জামায়াতের আমিরসহ ৬ নেতাকর্মী আটক
াাাাাাাাা
আজ বিএনপির মনোনয়ন পেলেন যাঁরা
365942_166
বিএনপি জোটের মনোনয়ন পেলেন জামায়াতের যে নেতারা
াাাাাা
কুষ্টিয়াতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ আটক ৬ ডাকাত
Jhenidah-News-26.11.18...
ঝিনাইদহে জেলা জামায়াতের আমির গ্রেফতার
22-2
সড়ক দুর্ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই নিহত
46634248_764069590605463_6141007663602860032_n
কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল শহীদ গোলাম কিবরিয়া পরিবার
ববববববববববববব
আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্বাচনে যে নির্দেশনা দেবে ইসি
No image found
নির্বাচনী পোস্টারে থাকছে খালেদার ছবি
366180_192
আমি এখনো মুক্ত নই : এরশাদ

গুরুত্বপূর্ণ খবর

    জামায়াতের আমিরসহ ৬ নেতাকর্মী আটক

    দিগন্ত ডেস্ক:  বাগেরহাটে জেলা জামায়াত ইসলামীর আমিরসহ ছয় নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

    গত শনিবার সকালে বাগেরহাট সদর উপজেলার চিতলী বৈটপুর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

    আটক জামায়াত নেতা হলেন- বাগেরহাট জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা রেজাউল করিম, জামায়াতকর্মী এমাদ উদ্দিন, মিজানুর রহমান, মনিরুজ্জামান, ছগির উদ্দিন এবং বদরুজ্জামান।

    বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় জানান, চিতলী বৈটপুর রাস্তার পাশে কয়েক জন ব্যক্তি অবস্থান করছে এমন খবর পেয়ে টহলে থাকা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) এবং মডেল থানা পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়।

    পরে পুলিশ সেখান থেকে ছয়জনকে আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে পাঁচটি পেট্রলবোমা, দু’টি চাপাতি এবং দেশি তৈরি বেশকিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে।hhhhh-23

    তিনি আরও জানান, আসন্ন সংসদ নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার জন্য জামায়াতের আটক ওই নেতাকর্মীরা এসব পেট্রলবোমা, চাপাতি এবং দেশি তৈরি ধারালো অস্ত্র মজুত করছে বলে পুলিশ জানতে পেরেছে। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।

    312 total views

    আজ বিএনপির মনোনয়ন পেলেন যাঁরা

    ঢাকা অফিসঃ াাাাাাাাাএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে দ্বিতীয় দিনের মতো দলীয় মনোনয়নের চিঠি দিচ্ছে বিএনপি। আজ মঙ্গলবার বেলা পৌনে একটার দিকে বিএনপি দ্বিতীয় দিনের কার্যক্রম শুরু করে।

    বিকেল সোয়া ৪টা পর্যন্ত দলটির মনোনয়নের চিঠি পেয়েছেন যাঁরা, তাঁরা হলেন—

    ঢাকা-৬ আসনে ইশরাক হোসেন, ঢাকা-১৩ আসনে মোহাম্মদ আবদুস সালাম, ঢাকা-১৭ আসনে ফরহাদ হালিম (ডোনার)।

    ফরিদপুর-১ আসনে শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর, ফরিদপুর-২ আসনে মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, ফরিদপুর-৪ আসনে শাহরিয়া ইসলাম শায়লা।

    ময়মনসিংহ-১ আসনে এমরান সালেহ প্রিন্স ও সালমান ওমর রুবেল, ময়মনসিংহ-২ আসনে শাহ শহীদ সারওয়ার, ময়মনসিংহ-৩ আহম্মেদ তায়েবুর রহমান ওরফে হিরণ ও ডক্টর মোহাম্মদ আবদুস সেলিম, ময়মনসিংহ-৪ আসনে আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ, ময়মনসিংহ-৮ আসনে শাহ নূরুল কবির শাহীন, ময়মনসিংহ-৯ আসনে ইয়াসের খান চৌধুরী, ময়মনসিংহ-১০ আসনে মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান।

    চট্টগ্রাম-১ আসনে কামাল উদ্দীন আহমেদ, মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম ইউসুফ ও নুরুল আমিন, চট্টগ্রাম-৮ আসনে আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম-১২ আসনে মোহাম্মদ এনামুল হক, চট্টগ্রাম-১৩ আসনে মুস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম-৭ আসনে মো. শওকত আলী নূর।

    কুমিল্লা-৩ আসনে শাহিদা রফিক ও কে এম মজিবুল হক, কুমিল্লা-৫ আসনে অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস, কুমিল্লা-৬ আসনে হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াসিন, কুমিল্লা-৯ আসনে কর্নেল আনোয়ারুল আজীম।

    জামালপুর-১ আসনে এম রশিদুজ্জামান মিল্লাত ও মো. আব্দুল কাইয়ুম, জামালপুর-৩ মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা, জামালপুর-৪ আসনে ফরিদুর কবির তালুকদার শামীম, জামালপুর-৫ আসনে সিরাজুল হক।

    কিশোরগঞ্জ-১ আসনে মোহাম্মদ রেজাউল করিম খান, কিশোরগঞ্জ-২ আসনে মোহাম্মদ শহীদুজ্জামান, কিশোরগঞ্জ-৫ আসনে শেখ মজিবুর রহমান ইকবাল বা মাহমুদুর রহমান উজ্জ্বল।

    কুষ্টিয়া-২ আসনে ফরিদা ইয়াসমিন, কুষ্টিয়া-৩ আসনে অধ্যাপক সোহরাব উদ্দীন, কুষ্টিয়া-৪ আসনে সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমি ও নুরুল ইসলাম আনসার পরামাণিক।

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ তৌফিকুল ইসলাম ও ইঞ্জিনিয়ার খালেদ মাহমুদ শ্যামল।

    নেত্রকোনা-২ আসনে এবি এম আবদুল বারি ও আসনে আশরাফ উদ্দীন খান, নেত্রকোনা-৩ আসনে রফিকুল ইসলাম হিলালি, নেত্রকোনা-৫ আসনে আবু তাহের তালুকদার ও রাবেয়া খাতুন।

    রাজশাহী-৬ আসনে রমেশ দত্ত।

    টাঙ্গাইল-৪ আসনে ইঞ্জিনিয়ার আবদুল হালিম মিয়া, টাঙ্গাইল-৭ আসনে সাইদুর রহমান, টাঙ্গাইল-৬ আসনে নুর মোহাম্মদ খান ও গৌতম চক্রবর্তী

    বরগুনা-২ আসনে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন তালুকদার।

    মুন্সিগঞ্জ-১ শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, মুন্সিগঞ্জ-৩ আবদুল হাই।

    ফেনী-১ আসনে আবদুল আওয়াল মিন্টু, ফেনী-৩ আসনে আবদুল লতিফ জনি

    যশোর-৪ আসনে সুকৃতি কুমার মণ্ডল।

    নরসিংদী-১ আসনে খায়রুল কবির খোকন, নরসিংদী-৩ আসনে মোহাম্মদ আকরামুল হাসান, নরসিংদী-৪ আসনে শাখাওযাত হোসেন বকুল, নরসিংদী-৫ আসনে মোহাম্মদ আশরাফ উদ্দিন ও এ কে নেছার উদ্দিন।

    নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে কাজী মনিরুজ্জামান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনে নজরুল ইসলাম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে খন্দকার আবু জাফর ও আজাহারুল ইসলাম মান্নান, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে মোহাম্মদ মামুন মাহমুদ ও মোহাম্মদ শাহ আলম।

    পঞ্চগড়-২ আসনে নাদিরা আক্তার, রংপুর–৪ আমিনুল ইসলাম রাঙ্গা, চট্টগ্রাম ১০ মোশাররফ হোসেন দীপ্তি, পিরোজপুর ২ ডা. মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান।

    চাঁদপুর-৫ আসনে এম এ মতিন ও ইঞ্জিনিয়ার মমিনুল হক, চাঁদপুর-৩ আসনে শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক।

    পাবনা-৪ আসনে সিরাজুল ইসলাম সর্দার।

    নড়াইল-২ আসনে ফরিদ উজ জামান ফরহাদ।

    শেরপুর-১ আসনে মোহাম্মদ হযরত আলী, শেরপুর-৩ আসনে মাহমুদুল হক রুবেল।

    মৌলভীবাজার-১ আসনে নাসির উদ্দীন আহমদ, মৌলভীবাজার-৩ আসনে নাসের রহমান

    সিলেট-৩ আসনে শরীফ আহমেদ চৌধুরী, সিলেট- ১ আসনে খন্দকার আবদুল মোক্তাদীর

    গাইবান্ধা-৩ আসনে রওশন আরা খাতুন।

    নাটোর-৪ আসনে জন গোমেজ।

    গোপালগঞ্জ-২ আসনে ডা. কে এম বাবর ও সিরাজুল ইসলাম, গোপালগঞ্জ-৩ আসনে এস এম আফজাল হোসেন

    সুনামগঞ্জ-১ আসনে কামরুজ্জামান কামরুল ও আনিসুল হক, সুনামগঞ্জ ৪ দেওয়ান জয়নুল জাকেরিন।

    বরিশাল-৪ আসনে মোহাম্মদ রাজীব আহসান।

    লক্ষ্মীপুর-২ আসনে হারুনুর রশিদ, লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে মোহাম্মদ শাহবুদ্দীন সাবু।

    রাজবাড়ী-১ আসনে আসলাম মিয়া

    নীলফামারী-২ আসনে কাজী আক্তারুজ্জামান জুয়েল

    448 total views

    বিএনপি জোটের মনোনয়ন পেলেন জামায়াতের যে নেতারা

    ঢাকা অফিসঃ ৩০ ডিসেম্বর আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে ২০ দলীয় জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামীকে ২৫টি আসন দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে ২০ দলীয় জোট সূত্রে এই খবর জানা গেছে।

    মনোনয়নপ্রাপ্তরা হলেন:

    ঠাকুরগাঁও-২ আসনে আব্দুল হাকিম, দিনাজপুর-১ আসনে মোহাম্মদ হানিফ, দিনাজপুর-৬ আসনে আনোয়ারুল ইসলাম, নীলফামারী-২ আসনে মনিরুজ্জামান মন্টু, নীলফামারী-৩ আসনে আজিজুল ইসলাম, রংপুর-৫ আসনে গোলাম রব্বানী, গাইবান্ধা-১ আসনে মাজেদুর রহমান সরকার, সিরাজগঞ্জ-৪ আসনে রফিকুল ইসলাম খান, পাবনা-৫ আসনে ইকবাল হুসাইন, ঝিনাইদহ-৩ আসনে মতিউর রহমান, কুমিল্লা-১১ আসনে সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের, কক্সবাজার-২ আসনে হামিদুর রহমান আজাদ, চট্টগ্রাম-১৫ আসনে শামসুল ইসলাম।

    যশোর-২ আসনে আবু সাঈদ মুহাম্মদ শাহাদত হোসাইন, বাগেরহাট-৩ আসনে আব্দুল ওয়াদুদ, বাগেরহাট-৪ আস365942_166নে আবদুল আলিম, খুলনা-৫ আসনে মিয়া গোলাম পরওয়ার, খুলনা-৬ আসনে আবুল কালাম আযাদ, সাতক্ষীরা-৩ আসনে রবিউল বাশার, সাতক্ষীরা-২ আসনে আব্দুল খালেক, সাতক্ষীরা-৪ আসনে গাজী নজরুল ইসলাম, পিরোজপুর-১ আসনে শামীম সাঈদী, সিলেট-৫ আসনে ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, সিলেট-৬ আসনে হাবিবুর রহমান ও ঢাকা-১৫ আসনে শফিকুর রহমান।

    ২০১৩ সালের ১ আগস্ট জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল ও অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট। গত ২৮ অক্টোবর জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তাই দল হিসেবে নির্বাচন করার সুযোগ নেই জামায়াতের। তবে জামায়াত নেতারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কিংবা নিবন্ধিত অন্য কোনো দলের প্রার্থী হয়ে সেই দলের প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে পারবেন। এ বিষয়ে ৯ নভেম্বর ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, অনিবন্ধিত কোনো দল নিবন্ধিত কোনো দলের সঙ্গে জোটগতভাবে নির্বাচন করতে চাইলে ইসির কিছু করার থাকবে না। এই বিষয়ে আইনে কোনো ব্যাখ্যা নেই।

    তথ্যসূত্র- প্রথম আলো।

    576 total views

    কুষ্টিয়াতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ আটক ৬ ডাকাত

    নিউজ ডেস্ক্রঃ কুষ্টিয়ায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ছয় ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশ। এসময় ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত অস্ত্র-গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

    সোমবার (২৭ নভেম্বর) গভীর রাতে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের আলামপুর এলাকা থেকে ডাকাতদের আটক করা হয়।

    কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন াাাাাা জানান, সোমবার গভীর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি যে, কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের আলামপুর বালিয়াপাড়া পশুহাটের পাশে একটি ডাকাতদল ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে।

    এমন সংবাদের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে আমরা ডাকাতদলকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলি। এসময় তাদের ৬ জনকে আটক করতে সমর্থ হয়েছি।

    অভিযানে একটি দেশীয় একনলা ওয়ান শুটার গান, ৫ রাউন্ড গুলি ও তিনটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

    প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, তারা ডাকাতি, ছিনতাই ও মোটরসাইকেল চুরির সাথে জড়িত।

    আটককৃতরা হলেন, ঝিনাইদহ জেলার গোয়ালবাড়িয়া এলাকার ইমদাদুল হকের ছেলে ঝন্টু মিয়া (৪০), মহেশপুর থানার গোপালপুর স্কুলপাড়া এলাকার আবুল কালামের ছেলে মিকাইল হসেন (৩৬), কোটচাঁদপুর থানার ইকবাল হোসেনের ছেলে মামুন আল হাসান (৩৫), কোটচাঁদপুর কলেজপাড়া এলাকার আবু তালেব কারিগরের ছেলে লাভলু (২৫)।

    এছাড়া বাকি দুইজন চুয়াডাঙ্গা জেলার রাজাপুর এলাকার শওকত আলীর ছেলে আতিয়ার রহমান ওরফে আতিয়ার (৩২) ও আকন্দবাড়িয়া এলাকার আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের ছেলে মিলন হসেন (৩০)।

    আটককৃতদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় পুলিশ।

    312 total views

    ঝিনাইদহে জেলা জামায়াতের আমির গ্রেফতার

    ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে নাশকতার মামলায় জেলা জামায়াতের আমির আলী আযম মোঃ আবু বকরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সকালে শহরের পানি উন্নয়ন বোর্ডের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।  ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা শহরে নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সকালে পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় অন্যরা পালিয়ে গেলেও গ্রেফতার করা হয় জেলা জামায়াতের আমির আলী আযম মোঃ আবু বকরকে। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ১০টি ককটেল ও বেশ কিছু জিহাদী বই। তার নামে ঝিনাইদহ সদর থানায় নাশকতার মামলা রয়েছে।

    এবিষয়ে জামায়েত Jhenidah-News-26.11.18...ইসলাম থেকে বলা হয়েছে, সামনে নির্বাচনকে সামনে রেখে এমন নাটক সাজিয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের আটক করা হচ্ছে।

    240 total views

    সড়ক দুর্ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই নিহত

    দিগন্ত ডেস্ক্রঃ 22-2সড়ক দুর্ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই নিহত হয়েছেন।  রবিবার দুপুরে জেলার ইবি থানাধীন ভাদালিয়া বাজারের দিকে এই দূর্ঘটনা ঘটে । এই দুর্ঘটনায় আরো কমপক্ষে ১৫ জন আহত হন।

    নিহত এসআই মাসুদের বাড়ি ফরিদপুর জেলায়। তিনি কুষ্টিয়াসহ আশেপাশের জেলায় দীর্ঘদিন কর্মরত ছিলেন।

    পুলিশ জানায়, রবিবার দুপুর সোয়া ৪ টার দিকে কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই মাসুদ মোটরসাইকেলযোগে কুষ্টিয়ার অভিমুখে যাচ্ছিলেন। এ সময় সদর উপজেলার অন্তর্গত ভাদালিয়া বাজারের সন্নিকটে আকিজ গোডাউনের কাছে মালবোঝাই ট্রাকের (কুষ্টিয়া চ-০২-০০৯৪) চাকায় পিষ্ট হয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। ঘটনার পর ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার পুলিশ ঘাতক ট্রাকসহ চালক খাইরুল ইসলাম ও সহকারী আলমগীর হোসেনকে আটক করে।

    দুর্ঘটনায় এসআই মাসুদ নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ওসি রতন শেখ।

     

    216 total views

    কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল শহীদ গোলাম কিবরিয়া পরিবার

    নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ 46634248_764069590605463_6141007663602860032_nআসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭৮ কুষ্টিয়া -৪ কুমারখালী – খোকসা আসনে সমস্ত জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন শহীদ গোলাম কিবরিয়ার পৌত্র ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ।

    শহীদ গোলাম কিবরিয়া কুমারখালীর আওয়ামী লীগের গোড়া পত্তনকারী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের অত্যন্ত আস্থাভাজন সাবেক প্রাদেশিক পরিষদ, গণ পরিষদ ও জাতীয় সংসদ সদস্য ও কুমারখালী থানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ গোলাম কিবরিয়া ১৯৭০ ও ১৯৭৩ সালে একই আসন হতে এমপি নির্বাচিত হন। গোলাম কিবরিয়া ১৯৭৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর ঈদগাহে ঈদের নামাজ রত অবস্থায় আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। ১৯৭৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর শহীদ গোলাম কিবরিয়া আততায়ীর হাতে নিহত হবার পর তার বড় পুত্র আবুল হোসেন তরুন ১৯৭৫ সালে উপনির্বাচন ও ১৯৮৬ সালে সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। আবুল হোসেন তরুন ১৯৯৭ সালের ৯ মার্চ ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হ্রদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। তার মৃত্যুর পর তার সহধর্মিণী বেগম সুলতানা তরুন ২০০৮ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ৭৮, কুষ্টিয়া ৪ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। দীর্ঘ সময় পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের গোড়াপত্তন কারী পরিবার শহীদ গোলাম কিবরিয়ার পৌত্র এবং মরহুম আলতাফ হোসেন কিরণের পুত্র সেলিম আলতাপ জর্জ মনোনয়ন পেলেন।

    23,576 total views

    আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্বাচনে যে নির্দেশনা দেবে ইসি

    ঢাকা অফিস: নির্বাচন-বিষয়ক আইনশৃঙ্খলা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। নির্বাচন কমিশনে (ইসি) সকাল সাড়ে ১০টায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

    সভা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি ভোটের দিন এবং তার আগে-পরের পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ রাখতে ১২ দফা নির্দেশনা দেয়া হবে বলে বুধবার জানিয়েছেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

    বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও চার কমিশনার, ইসি সচিবালয়ের কর্মকর্তা এববববববববববববববং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা অংশ নেবেন।

    এতে ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের নিরাপত্তা দেয়া, নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশ সুষ্ঠু রাখা ও ভোটের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করার বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে।

    সচিব নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, সভা থেকে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর করণীয় কী, সে বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেয়ার জন্যই আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

    ‌‘সভায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করা, সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, নারী ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যাওয়া নির্বিঘ্ন করা এবং ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা ও নির্বাচনী মালামালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ওপর জোর দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর নির্দেশ থাকবে।’

    সাধারণত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার ও সন্ত্রাসীদের তৎপরতা বেড়ে যায় জানিয়ে সচিব বলেন, এসব অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের রোধে পুলিশ বাহিনীকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হবে।

    ‘এ ছাড়া সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর যাতে কোনো ধরনের হামলা না হয়, সে বিষয়েও সজাগ থাকার নির্দেশ দেয়া হবে।’

    বিএনপি আজ যে চিঠি দিয়েছে, সেটি নিয়ে আগামীকাল কমিশন সভায় আলোচনা হবে বলে মন্তব্য করেন হেলালুদ্দীন। তফসিল ঘোষণার পর বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার বিষয়ে সচিব বলেন, সবই কমিশনের নজরে আনা হয়েছে।

    নতুন করে বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার বা হয়রানি বন্ধে কোনো নির্দেশ দেয়া হবে কি না, প্রশ্নে সচিব হেলালুদ্দীন বলেন, কিছু নির্দেশনা দেয়া হবে।

    নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফেসবুকে নানা ধরনের গুজব ছড়ানো হয়। ফেসবুক মনিটরিং করার বিষয়ে ইসি কোনো পদক্ষেপ নেবে কি না, জানতে চাইলে সচিব বলেন, এ বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে ২৬ নভেম্বর ইসি সব মোবাইল অপারেটর ও বিটিআরসি প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসবে।

    ‘তবে ভোটের দিন ফেসবুক বন্ধের কোনো পরিকল্পনা আপাতত ইসির নেই।’

    হেলালুদ্দীন বলেন, সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পে নতুন করে বরাদ্দ না করার বিষয়ে সরকারকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

    ‘তবে পুরোনো প্রকল্পে অর্থ ছাড় করায় বাধা নেই। কেউ কোনো প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে পারবেন না। এমনকি প্রধানমন্ত্রীও এ ধরনের কাজ করতে পারবেন না।’

    650Shares

    88 total views

    নির্বাচনী পোস্টারে থাকছে খালেদার ছবি

    দিগন্ত অনলাইন ডেস্ক: অনেকের মাঝে ছিলো হাজারো ধোয়াসা, নির্বাচনের প্রচারনাতে থাকছে কি দলের প্রধান কর্তার ছবি!!!

    দুর্নীতির অভিযোগে দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আসন্ন নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কি না, সে প্রশ্নের মীমাংসা এখনও হয়নি; তবে দলীয় প্রার্থীদের পোস্টারে তার ছবি থাকলে তাতে আপত্তির কিছু দেখছে না নির্বাচন কমিশন।

    বাংলাদেশের নির্বাচনী আইনে সংসদ নির্বাচনের পোস্টারে প্রতীক, প্রার্থী ও দলীয় প্রধানের ছবি ছাড়া অন্য কারও ছবি রাখার সুযোগ নেই।

    খালেদা জিয়া ফৌজদারি মামলায় দণ্ডিত হলেও বিএনপির প্রার্থীদের পোস্টারে তার ছবি ব্যবহারে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

    এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “যদি কোনো রাজনৈতিক দল মনে করে যে, দলীয় প্রধানের ছবি রাখবে, সেটা রাখতে পারেন। আইনে এটা কিন্তু সেভাবে বর্ণনা করা নাই।”

    সংসদ নির্বাচনের আচরণ বিধিমালার ৭ এর ৩ উপবিধিতে বলা হয়েছে- প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারের পোস্টার হবে সাদা-কালো রঙের। আয়তন হবে অনধিক ৬০ সেন্টিমিটার বাই ৪৫ সেন্টিমিটার। ব্যানারও হতে হবে সাদা-কালো রঙের। আয়তন হবে অনধিক ৩ মিটার বাই ১ মিটার। পোস্টার বা ব্যানারে প্রার্থী তার প্রতীক ও নিজের ছবি ছাড়া অন্য কোনো ব্যক্তির ছবি বা প্রতীক ব্যবহার করতে পারবেন না।

    উপবিধি ৪ এ বলা হয়েছে, উপবিধি ৩ এ যা কিছুই থাকুক না কেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মনোনীত হলে সেক্ষেত্রে তিনি কেবল তার বর্তমান দলীয় প্রধানের ছবি পোস্টারে ছাপতে পারবেন।

    ইসি কর্মকর্তারা বলছেন, এই নিয়ম অনুযায়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা দলীয় প্রধান হিসেবে শেখ হাসিনা এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছবি পোস্টারে ব্যবহার করতে পারবেন।

    আর কমিশনের হাতে থাকা তথ্য অনুযাisয়ী খালেদা জিয়া এখনও বিএনপির প্রধান। সেক্ষেত্রে দলীয় প্রধান হিসেবে অন্য কারো ছবি ব্যবহারের সুযোগ নেই বিএনপির প্রার্থীদের।

    তবে জোটভুক্ত হয়ে ভোট করলে জোট প্রধানের ছবি ব্যবহারের সুযোগ নেই বলে ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

    ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময়, বাছাই ২ ডিসেম্বর ও প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর।

    সেক্ষেত্রে ১০ ডিসেম্বরের আগে আনুষ্ঠানিক প্রচারের কোনো সুযোগ নেই। ১০ ডিসেম্বর থেকে পোস্টার, ব্যানারের মত প্রচার সামগ্রীসহ প্রচারের সুযোগ পাবেন প্রার্থীরা। এর আগে কোনো ধরনের পোস্টার ব্যবহারের সুযোগ নেই।

    পোস্টারের ছবি হতে হবে ‘পোট্রেইট’, কোনো অনুষ্ঠান, মিছিলে নেতৃত্বদান, প্রার্থনারত অবস্থার ছবি কোনো অবস্থায় ছাপানো যাবে না। ছবির আয়তন হবে সর্বোচ্চ ৬০ সেন্টিমিটার বাই ৪৫ সেন্টিমিটার।

    কোনো প্রার্থীর নির্বাচনী প্রতীক দৈর্ঘ্য, প্রস্থ বা উচ্চতায় তিন মিটারের বেশি হতে পারবে না।

    কোনো প্রার্থী বা তার পক্ষে অন্য কেউ মুদ্রণকারী প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা ও মুদ্রণের তারিখবিহীন কোনো পোস্টার লাগাতে পারবেন না।

    -বিডিনিউজ24

    58,152 total views

    আমি এখনো মুক্ত নই : এরশাদ

    ঢাকা অফিসঃ  ‘এই পার্টির জন্য আমার চেয়ে বেশি দুঃখ-কষ্ট কেউ সহ্য করে নাই। এখনো মামলা আছে আমার, একটা দিনও মুক্ত মানুষ ছিলাম না। এখনো নই।’ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনেই নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘জাতীয় পার্টি জেগে উঠেছে।’

    প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত বলেন, ‘এবার জাতীয় পার্টির ইতিহাসে সর্বোচ্চ সংখ্যক মনোনয়ন বিক্রি হয়েছে। এটা আমার পার্টির জন্য, আমাদের সকলের জন্য সুখবর।’এইচ এম এরশাদ বলেন, ‘সবাইকে পার্টির স্বার্থে কাজ করতে হবে। ত্যাগ স্বীকারের মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে সবাইকে। জাতীয় পার্টি আবার জেগে উঠেছে। দলের স্বার্থে তিনি যাকে মনোনয়ন দেবেন, সে-ই মনোনয়ন পাবেন।’জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি তিনশ আসনে প্রার্থীদের যাচাই-বাছাই করেছি। এখানে আর কারো কোনো দায়িত্ব নেই। অন্যদের জবাবদিহি করতে হবে না। আমি দেখতে চাই, তিনশ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রয়েছেন।’

    এ সময় দশম জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেন, ‘তরুণরাই পার্টিকে এগিয়ে নেবে।’ এদিকে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে, পরিকল্পনা অনুযায়ী সবাইকে একসাথে কাজ করার আহ্বান 366180_192জানান তিনি।

    তথ্য সূত্রঃ নয়াদিগন্ত

    128 total views

121,470 total views, 251 views today

প্রধান খবর

  • আজ ৯ ডিসেম্বর কুমারখালী হানাদার মুক্ত দিবস

    কুমারখালি প্রতিনিধি : ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে কুমারখালীর মুক্তিযোদ্ধারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন এবং কুমারখালীকে হানাদার মুক্ত করেছিলেন।

    ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর সকালে মুক্তিযোদ্ধারা পরিকল্পিত ভাবে কুমারখালীতে প্রবেশ করে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুন্ডুপাড়ার রাজাকারদের ক্যাম্প আক্রমণ করেন। রাজাকার কমান্ডার ফিরোজ বাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের তুমুল যুদ্ধ শুরু হয়।

    এ খবর কুষ্টিয়া জেলা শহরে অবস্থানরত পাক-সেনাদের কাছে পৌঁছালে তারা দ্রুত কুমারখালীতে এসে গুলিবর্ষণ করতে থাকলে পুরো শহর আতঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পড়ে। এবং মুক্তিযোদ্ধারা তাদের অkkkkপর্যাপ্ত অস্ত্র ও সংখ্যায় কম থাকায় শহর ত্যাগ করেন।

    এ সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকাররা কুমারখালী শহরজুড়ে হত্যাযজ্ঞ, অগ্নিসংযোগ ও লুটতরাজ শুরু করে।৭ ডিসেম্বরের যুদ্ধে পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা তোসাদ্দেক হোসেন ননী মিয়া শহীদ হন।
    পাকিস্তানী হানাদারদের হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়েছিলেন মুক্তিকামী বীর বাঙালী সামসুজ্জামান স্বপন, সাইফুদ্দিন বিশ্বাস, আব্দুল আজিজ মোল্লা, শাহাদত আলী, কাঞ্চন কুন্ডু, আবু বক্কার সিদ্দিক, আহমেদ আলী বিশ্বাস, আব্দুল গনি খাঁ, সামসুদ্দিন খাঁ, আব্দুল মজিদ ও আশুতোষ বিশ্বাস মঙ্গল।

    পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধারা সুসংগঠিত হয়ে ৯ ডিসেম্বর পাকবাহিনীর ক্যাম্পে (বর্তমানে কুমারখালী উপজেলা পরিষদ) আক্রমণ করেন।

    দীর্ঘসময় যুদ্ধের পর পাকিস্তানি বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণের কাছে টিকতে না পেরে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । ৯ ডিসেম্বরের যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে রাজাকার কমান্ডার খুশি মারা যায়।

    এইদিন কুমারখালী শহর হানাদার মুক্ত হওয়ার পর সর্বস্তরের জনতা এবং মুক্তিযোদ্ধারা রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল বের করেন।

    6,495 total views, 205 views today

আজকের খবর

জাতীয়

কুষ্টিয়ার খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : খালিদ হাসান সিপাই.

নির্বাহী সম্পাদক : মাজহারুল হক মমিন।

বড় জামে মসজিদ মার্কেট, এন এস রোড কুষ্টিয়া।

০১৭১৬২৬৮৮৫৮, E-mail: Kushtiardiganta@gmail.com .