শিরোনাম
াাাাাাাাা
তারেকের আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ, ইসিতে আ“লীগ
media
বাংলাদেশ সরকার যেভাবে ফেসবুক, ইউটিউব নজরদারি করবে
wpid-images3792972625912154723.jpeg
প্রযুক্তির অবাধ ব্যবহার প্রসঙ্গে।
suborna
পাবনায় সাংবাদিক সুবর্ণা হত্যায় প্রতিবাদী সাংবাদিক মহল : কুষ্টিয়ার দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদকের নিন্দা
golam soroar
সমকাল সম্পাদক গোলাম সরোয়ারের ইন্তেকাল : কুষ্টিয়ার দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদকের শোক
199317_1
মহাবিশ্বে বালুকণার চেয়ে বেশি তারা আছে !!!!
kushtia 2 jarnalist torchar
ফিড ব্যাক : সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরীর পর এক যুগ পর কুষ্টিয়ায় সাংবাদিক নেতা মাহমুদুর রহমান রক্তাক্ত ॥ দেশব্যাপী তোলপাড়
mahmudur rahman ahoto
কুষ্টিয়ায় মাথা ফাটলো আমারদেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের
kushtia journalist pic
কুষ্টিয়া জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভা অনুষ্ঠিত
amirul barister
‘মোবাইল কোর্টের’ শুনানিতে মোবাইল জব্দ!

গুরুত্বপূর্ণ খবর

    তারেকের আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ, ইসিতে আ“লীগ

    ঢাকা অফিসঃ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগ। আজ রোববার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ফারুক খানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের কাছে অভিযোগ জানায়।

    নির্বাচন কমিশন সচিবের কাাাাাাাাাাছে অভিযোগ দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ফারুক খান সাংবাদিকের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। এক প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘গত দুই দিনে দেশের জনগণের মতো আওয়ামী লীগও লক্ষ করছে, নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘিত হচ্ছে। আজকে আমরাও দেখেছি, আপনারাও দেখেছেন, দেশের একজন পলাতক, দণ্ডিত আসামি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে স্কাইপে বা টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলেছে। এটি সুপ্রিম কোর্টের রায়ের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন, এটি আদালত অবমাননার শামিল।’ তিনি আরও বলেন, কিছুদিন আগে নির্বাচন কমিশন বলেছে, গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে তারেক রহমান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করতে পারেন না। এটি নির্বাচনী ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে। এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে, নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা নেবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

    সাবেক মন্ত্রী ফারুক খান বলেন, ‘আমরা গতকাল শনিবার খুবই উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করেছি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যে নামেই হোক, বিএনপি-জামায়াত, তারা দিনব্যাপী সুপ্রিম কোর্টের মতো একটি আদালত প্রাঙ্গণে বসে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ করেছে। সেখানে এমন এমন কথা বলা হয়েছে, যেগুলো সম্পূর্ণভাবে নির্বাচন–পূর্ববর্তী আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এই লঙ্ঘনের মাধ্যমে ইতিমধ্যে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার একটা প্রয়াস হচ্ছে। এগুলো যদি অব্যাহত থাকে, তাহলে ভবিষ্যতে নির্বাচন আরও প্রশ্নবিদ্ধ হবে।’ নির্বাচন কমিশন দ্রুত শক্ত পদক্ষেপ নেবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্মিত ডকুড্রামার বিষয়ে ফারুক খান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ওপর নির্মিত বিষয়টি বিনোদন মাধ্যমে দেখানো হচ্ছে। মানুষ টাকা খরচ করে এটি দেখছে, এখানে নির্বাচনী কোনো বিষয় নেই।

    এ সময় সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুসারে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কোনো বক্তব্য টেলিভিশন বা কোনো মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার বা টেলিকনফারেন্সিং করা যাবে না। এটি করে তারেক রহমান আদালতের আদেশ ভঙ্গ করার মাধ্যমে নির্বাচনী আচরণবিধিও ভঙ্গ করছেন। কারণ, নির্বাচনী আচরণবিধিতে আছে, দেশে বিদ্যমান সব আইন মেনে চলতে হবে। মহিবুল হাসান চৌধুরী আরও বলেন, বিএনপি যে কাজটি করছে, একজন দণ্ডিত আসামির দ্বারা সাক্ষাৎকার শুধু অবৈধ নয়, অনৈতিকও বটে।

    গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ করে মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, আদালত যেহেতু এই পলাতক ব্যক্তির বক্তব্য প্রচার না করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন, সে জন্য গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ রইল আদালতের আদেশ মেনে চলতে।

    আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

    বিএনপির প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রথম আলোকে জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার আজ রোববার সকালে শুরু হয়। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেন লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। সকাল নয়টার দিকে রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়।

    গতকাল শনিবার বিকেলে জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের আয়োজনে আইনজীবীদের মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় রাজধানীর সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে। মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, একবার নির্বাচন বর্জন করে ভুগতে হয়েছে। তাই কোনো অবস্থাতেই এবার নির্বাচন বর্জন করবে না জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

    1,680 total views

    বাংলাদেশ সরকার যেভাবে ফেসবুক, ইউটিউব নজরদারি করবে

    mediaঅনলাইন ডেস্ক : ফেসবুক বা ইউটিউবের মত সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত যে কোন কনটেন্ট যদি বাংলাদেশ সরকারের কাছে দেশের জন্য ক্ষতিকর বলে মনে হয়, তাহলে সরকার চাইলেই সেগুলো প্রতিরোধ করতে বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।
    এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কিছু প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। … সম্পূর্ণ খবর …

    448 total views

    প্রযুক্তির অবাধ ব্যবহার প্রসঙ্গে।

    প্রযুক্তির অবাধ ব্যবহার প্রসঙ্গে।
    প্রযুক্তির অবাধ ব্যবহার প্রসঙ্গে মো. মাঈন উদ্দিন :

    আজকের শিশুরা আগামী দিনের কর্ণধার। শিশুরা শিক্ষা-স্বাস্থ্যে, চিন্তা-চেতনায়, মনন ও মানসিকতায় যত উন্নত হবে ভবিষ্যত্ জাতি তত সমৃদ্ধ হবে। কিন্তু আজকালকার সময়ে শিশুদের সুস্থ মানসিকতা নিয়ে গভীর উদ্বিগ্ন বেশির ভাগ শিশু গবেষক, উদ্বিগ্ন সচেতন মহল, উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা। আর এই উদ্বেগের সামনে যে বিষয়টি চলে আসে তা হলো মোবাইল ও প্রযুক্তির অযাচিত ব্যবহার।
    প্রযুক্তি আমাদের সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক উন্নয়নে নিঃসন্দেহে অপরিহার্য। নিঃসন্দেহে প্রযুক্তির বহুমাত্রিক দিক রয়েছে। প্রযুক্তির অনেক অনেক ভালো দিক যেমন রয়েছে, রয়েছে তেমনি দুই একটি মন্দ দিকও। তার মধ্যে একটি ক্ষুদ্র দিক নিয়েই আমি আলোচনা করতে চাচ্ছি।
    মানব শিশুর মন কাঁদামাটির মতোই কোমল থাকে। শিশুকে যেভাবে, যে পরিবেশে গড়ে তোলা হবে শিশু সেভাবেই বেড়ে উঠবে। কাঁদামাটি যতটা নরম থাকে এই কাঁদামাটি দিয়ে গড়া ইট কিন্তু ততটাই শক্ত হয় অর্থাত্ পরিবেশের কারণে শিশু মনে কোনো অভ্যাস একবার স্থায়ী আসন গেঁড়ে বসলে তা থেকে বের হয়ে আসা কঠিন। আমাদের দেশে একটি শিশু ৫-৭ বছর বয়সে ঘরোয়া পরিবেশে যত সহজে বাংলা শিখতে পারে, তার পরবর্তী ৫-৭ বছর প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষা নিয়েও কিন্তু তত সহজে ইংরেজি শিখতে পারে না। এ থেকেও বোঝা যায় পরিবেশ বা পারিপার্শ্বিকতা শিশু মনের ওপর কতটা প্রভাব ফেলে।
    নিজের সন্তানকে কে না ভালোবাসে। সন্তানকে ভালোবাসতে গিয়ে যে শিশুটি ‘মা-বাবা’ শব্দটি ভালো করে উচ্চারণ করতে পারে না তাকে কানে মোবাইল ফোন ধরিয়ে বলি ‘নাও তোমার আন্টির সঙ্গে কথা বলো’। হয়তো কান্না থামাতে গিয়ে মোবাইল ফোনে ভিডিও গান দেখাই। কান্না থামে। ভালো, কিন্তু এই শিশুটিই ৫-৭ বছর বয়সে অধীর আগ্রহ নিয়ে মোবাইলে ভিডিও গান দেখে অথচ এই বয়সে মোবাইল ফোন দেখে তার ভয় পাওয়ার কথা। মোবাইল হাত থেকে নিতে গেলে শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করে। বলা হয়ে থাকে, ‘অভ্যাস মানুষের দাস,’ অভ্যাসের দরুণ সময়ের পরিক্রমায় এক সময় মোবাইল-ই হয়ে ওঠে শিশু-কিশোরদের নিত্যদিনের বহুমাত্রিক বিনোদনের সঙ্গী। মোবাইল ছাড়া এ জগত তার কাছে একদম সাদা-কালো মনে হয়।
    ১২-১৪ বছরের ছেলে বা মেয়ের আজকাল ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন থাকে। ইন্টারনেটে তার অবাধ বিচরণ। টাকা দিয়ে মেগাবাইট কিনে। সহপাঠী বা বন্ধুদের কাছ থেকে জানতে পারে কোন সাইটে কি পাওয়া যায়। বুঝলাম, ইন্টারনেটে শিক্ষণীয় অনেক কিছুই আছে কিন্তু আপনার ১৪ বছরের কিশোর বয়সী ছেলে বা মেয়েটি যে ইন্টারনেটের ভাল সাইটগুলো দেখছে এর কোনো গ্যারান্টি কি আপনি দিতে পারেন? আপনার ছেলে বা মেয়ে অর্ধরাত বা সারা রাত জেগে জেগে এফএম রেডিও শুনছে যেখানে ভালোবাসা, বয়ফ্রেন্ড, গার্লফ্রেন্ড শব্দগুলো কমন। অথবা কোনো ছেলে বা মেয়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে রাত ১২টার পর কথা বলছে, আপনি কি তার খবর রাখছেন? ভয়ঙ্কর কথা হলো, যৌবনের শুরুতে যার ডার্ক সাইটের সর্বত্র বিচরণ। ব্যক্তিগত মোবাইলের নামে যার হাতে ব্লু-ফিল্মের বাক্স, বিকৃত অভিলাসের উত্থানের তার শেষ পরিণতি বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ এমনকি বিভত্স কিছুতে জড়ালেও অবাক হবার কিছু নেই।
    একটি ঘটনা বলা যাক, ১৯৩০ সালে মি. সিং এবং তার স্ত্রী ভারতের মেদেনীপুর অঞ্চলে নেকড়ে পালিত দুটি মানব কন্যা শিশু উদ্ধার করে মানব সমাজে নিয়ে আসেন। এদের যখন উদ্ধার করা হয়, তখন তারা কনুই ও হাঁটুর উপর ভর দিয়ে চলত। দু’হাত ও দু’পায়ের ওপর ভর করে দৌড়াত। কাঁচা মাংস খেত। মেঝেতে দিলে চেটে চেটে পানীয় পান করত অথচ গ্লাস থেকে পানি পান করতে পারত না। পোশাক পরানো যেত না এমনকি শীতের সময়ও নয়। পোশাক পরালেই তা টুকরো টুকরো করে ছিড়ে ফেলত। চার বছর অভ্যাস করানোর পর বড় মেয়েটি মাত্র ৬টি শব্দ শিখতে পেরেছিল। এ থেকে সহজেই অনুমান করা যায় পরিবেশ বা হাতের কাছের বস্তুগুলো মানব মনকে, বিশেষ করে কচি মনকে কতটা প্রভাবিত করে।
    বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম, ফেসবুক শিশু-কিশোরদের জন্য আরেক আতঙ্কের নাম। ইউনিসেফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৩ শতাংশ শিশু-কিশোর সোশ্যাল মিডিয়ায় হয়রানির শিকার হয়। এর মধ্যে একাধিকবার হয়রানির শিকার হয়েছে ৩ দশমিক ৬ শতাংশ শিক্ষার্থী এবং এসব কারণে ৩ দশমিক ৩ শতাংশ শিক্ষার্থী তাদের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। ৮১ দশমিক ২ শতাংশ শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিত সময় দেয় এবং ৮০ দশমিক ১ শতাংশ শিক্ষার্থী কোনো হয়রানির শিকার হয়নি।
    জরিপটি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, দেশে এখনও শিশু-কিশোরদের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ ইন্টারনেট গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। প্রযুক্তির এ যুগে শিশু-কিশোরদের প্রযুক্তি থেকে দূরে রাখা উচিত নয়। তাই বলে প্রযুক্তিতে অবাধ বিচরণের সুযোগ প্রদান করাও ঠিক নয়। দেশে, বিশেষ করে রাজধানীতে খেলাধুলার পরিসর বা খেলার মাঠ ক্রমাগত হ্রাস পাচ্ছে। ফলে শিশু-কিশোরদের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ প্রযুক্তিতে অতিমাত্রায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। তারা প্রযুক্তি কোনো কিছু জানা বা শেখার জন্য ব্যবহার করছে কি-না সে বিষয়টা গুরুত্বপূর্ণ। অবাধ বিচরণের সুযোগ থাকলে শিশু না বুঝে ডার্ক ওয়েবে ঢুকে পড়তে পারে।
    আমরা প্রযুক্তিকে ব্যবহার করব, তবে লক্ষ্য রাখতে হবে প্রযুক্তি যেন আমাদের ব্যবহার না করে। বিশেষ করে শিশুদের প্রযুক্তি ব্যবহারে। ব্যবহারের শুরু থেকে সময় নির্ধারণ করে দিতে হবে। তাকে বোঝাতে হবে এটি শুধু খেলার মাধ্যম নয়, বরং জানার মাধ্যমও। এ জন্য অভিভাবকদেরও শিশুদের সামনে প্রযুক্তি ব্যবহারে সতর্ক থাকতে হবে। দুই বছরের কমবয়সী শিশুদের কোনোভাবেই প্রযুক্তির সঙ্গে সম্পর্ক গড়তে দেয়া উচিত নয়। তাদের সামনে প্রযুক্তি পণ্য উন্মোচন করাও উচিত নয়। শিশুর বয়স ৩ থেকে ৫ বছর হলে দৈনিক একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে প্রযুক্তি পণ্য ব্যবহার করতে দেয়া যেতে পারে।
    উন্নত দেশে সন্তানদের ইন্টারনেট ব্যবহারের গতিবিধি লক্ষ্য রাখার জন্য বেশকিছু প্রযুক্তি বা অ্যাপস রয়েছে। শিশুদের ইন্টারনেট ব্যবহারের বিভিন্ন দিক নিয়ে আন্তর্জাতিক পরিসরে কাজ করে এমন দুটি দাতব্য সংস্থা হল চাইল্ড লাইন ও এনএসপিসিসি। এসব সংস্থা শিশু-কিশোরদের জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট জগত তৈরি করতে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশে এমন সংস্থার অভাব রয়েছে।
    শিশুদের জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরি করতে প্রযুক্তির অবাধ, খোলামেলা, লাগামহীন বিচরণ হতে আমাদের সন্তানদের বুঝাতে বা দূরে রাখতে হবে। নৈতিক শিক্ষায় জোর দিতে হবে। আর এই কাজটি করতে চার দেয়ালের মধ্যের উপাদান অর্থাত্ মা-বাবা-ভাই-বোনকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। ডিজিটাল বিশ্ব গড়ে তুলতে গিয়ে যাতে শিশুর জীবন বিপদের দিকে ঠেলে দেয়া না হয় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। নাগরিক জীবনের শত ব্যস্ততার মাঝেও মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ বা ইন্টারনেট ব্যবহার যাতে নিজের সন্তানের জীবন বিপন্ন করে তুলতে না পারে সেটা নিশ্চিত করতে হবে অভিভাবকদেরই।

    45 total views, 1 views today

    পাবনায় সাংবাদিক সুবর্ণা হত্যায় প্রতিবাদী সাংবাদিক মহল : কুষ্টিয়ার দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদকের নিন্দা

    subornaনিজস্ব প্রতিনিধি : পাবনায় নারী সাংবাদিক সুবর্ণা নদীকে (৩২) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নদীর মা মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে পাবনা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় পাবনার শিল্পপতি আবুল হোসেনকে প্রধান আসামী করে তার ছেলে রাজিব হোসেন ও কেয়ারটেকার মিলনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। … সম্পূর্ণ খবর …

    1,520 total views

    সমকাল সম্পাদক গোলাম সরোয়ারের ইন্তেকাল : কুষ্টিয়ার দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদকের শোক

    golam soroarনিজস্ব প্রতিবেদক : সিনিয়র সাংবাদিক ও দৈনিক সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই। সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার রাতে তিনি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার মৃত্যুতে সাপ্তাহিক কুষ্টিয়ার দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক খালিদ হাসান সিপাইসহ পত্রিকার ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ গভীর শোক প্রকাশ করে মরহুমের মাগফেরাত কামনা করেছেন। … সম্পূর্ণ খবর …

    504 total views

    মহাবিশ্বে বালুকণার চেয়ে বেশি তারা আছে !!!!

    199317_1প্রযুক্তি ডেস্ক : এটা মহাজাগতিক অনুপাতের অংকের সমস্যা, কিন্তু সাগরের তীরে বসে থাকার সময় কিংবা সে সময় আকাশের দিকে তাকালে আপনার মনে হবে।
    ‘মহাবিশ্বের তারার মোট সংখ্যা পৃথিবীর বালুকণার চেয়ে বেশি’ এমন দাবি করেছেন একজন অ্যামেরিকান জ্যোতির্বিজ্ঞানী। … সম্পূর্ণ খবর …

    496 total views

    ফিড ব্যাক : সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরীর পর এক যুগ পর কুষ্টিয়ায় সাংবাদিক নেতা মাহমুদুর রহমান রক্তাক্ত ॥ দেশব্যাপী তোলপাড়

    kushtia 2 jarnalist torcharস্টাফ রিপোর্টার : ২০০৬ সালের ২৯ মে সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে কর্মসূচী পালন করতে এসে কুষ্টিয়াতে  হামলায় রক্তাক্ত হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। আর এক যুগ পরে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কুষ্টিয়া আদালতে জামিন নিতে এসে রক্তাক্ত হলেন। … সম্পূর্ণ খবর …

    592 total views

    কুষ্টিয়ায় মাথা ফাটলো আমারদেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের

    স্টাফ রিপোর্টার : দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কুষ্টিয়া চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে জামিন পেয়ে বের হওয়ার পর mahmudur rahman ahotoছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বাধার মুখে আদালত ভবনে প্রায় ৫ ঘন্টা অবরুদ্ধ ছিলেন।  ৫ ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকার পর বের হওয়ার সময় যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বেপরোয়া নগ্ন হামলায় দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান রক্তাক্ত জখম হন। আহত হন বিএফইউজে মহাসচিব এম আব্দুল্লাহসহ প্রায় ৫ জন আহত হয়েছেন। … সম্পূর্ণ খবর …

    624 total views

    কুষ্টিয়া জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভা অনুষ্ঠিত

    kushtia journalist picস্টাফ রিপোর্টার : কুষ্টিয়া জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের কমিটির নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে স্থানীয় চিলিস চাইনিস রেষ্টুরেন্টের কনফারেন্স রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান কুমার, নির্বাহী সদস্য মীর আল আরেফীন বাবু, মোস্তাফিজুর রহমান মঞ্জু, নুরুন্নবী বাবু, যুগ্ম সম্পাদক এম এ জিহাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক বকুল আলী, দপ্তর সম্পাদক ইব্রাহীম খলিল, … সম্পূর্ণ খবর …

    768 total views

    ‘মোবাইল কোর্টের’ শুনানিতে মোবাইল জব্দ!

    amirul baristerনিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অবৈধ ঘোষণা করে রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল শুনানির সময় সংবিধান বিশেষজ্ঞ ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলামের মোবাইল হঠাৎ বেজে ওঠার কারণে তা ১৫ মিনিটের জন্য জব্দ করেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। … সম্পূর্ণ খবর …

    97 total views, 1 views today

121,474 total views, 255 views today

প্রধান খবর

  • আজ ৯ ডিসেম্বর কুমারখালী হানাদার মুক্ত দিবস

    কুমারখালি প্রতিনিধি : ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে কুমারখালীর মুক্তিযোদ্ধারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন এবং কুমারখালীকে হানাদার মুক্ত করেছিলেন।

    ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর সকালে মুক্তিযোদ্ধারা পরিকল্পিত ভাবে কুমারখালীতে প্রবেশ করে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুন্ডুপাড়ার রাজাকারদের ক্যাম্প আক্রমণ করেন। রাজাকার কমান্ডার ফিরোজ বাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের তুমুল যুদ্ধ শুরু হয়।

    এ খবর কুষ্টিয়া জেলা শহরে অবস্থানরত পাক-সেনাদের কাছে পৌঁছালে তারা দ্রুত কুমারখালীতে এসে গুলিবর্ষণ করতে থাকলে পুরো শহর আতঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পড়ে। এবং মুক্তিযোদ্ধারা তাদের অkkkkপর্যাপ্ত অস্ত্র ও সংখ্যায় কম থাকায় শহর ত্যাগ করেন।

    এ সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকাররা কুমারখালী শহরজুড়ে হত্যাযজ্ঞ, অগ্নিসংযোগ ও লুটতরাজ শুরু করে।৭ ডিসেম্বরের যুদ্ধে পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা তোসাদ্দেক হোসেন ননী মিয়া শহীদ হন।
    পাকিস্তানী হানাদারদের হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়েছিলেন মুক্তিকামী বীর বাঙালী সামসুজ্জামান স্বপন, সাইফুদ্দিন বিশ্বাস, আব্দুল আজিজ মোল্লা, শাহাদত আলী, কাঞ্চন কুন্ডু, আবু বক্কার সিদ্দিক, আহমেদ আলী বিশ্বাস, আব্দুল গনি খাঁ, সামসুদ্দিন খাঁ, আব্দুল মজিদ ও আশুতোষ বিশ্বাস মঙ্গল।

    পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধারা সুসংগঠিত হয়ে ৯ ডিসেম্বর পাকবাহিনীর ক্যাম্পে (বর্তমানে কুমারখালী উপজেলা পরিষদ) আক্রমণ করেন।

    দীর্ঘসময় যুদ্ধের পর পাকিস্তানি বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণের কাছে টিকতে না পেরে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । ৯ ডিসেম্বরের যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে রাজাকার কমান্ডার খুশি মারা যায়।

    এইদিন কুমারখালী শহর হানাদার মুক্ত হওয়ার পর সর্বস্তরের জনতা এবং মুক্তিযোদ্ধারা রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল বের করেন।

    6,497 total views, 207 views today

আজকের খবর

জাতীয়

কুষ্টিয়ার খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : খালিদ হাসান সিপাই.

নির্বাহী সম্পাদক : মাজহারুল হক মমিন।

বড় জামে মসজিদ মার্কেট, এন এস রোড কুষ্টিয়া।

০১৭১৬২৬৮৮৫৮, E-mail: Kushtiardiganta@gmail.com .