শিরোনাম
flag-01201318
দেশ এখন স্বাধীন
Jhenidah-News-26.11.18...
ঝিনাইদহে জেলা জামায়াতের আমির গ্রেফতার
46634248_764069590605463_6141007663602860032_n
কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল শহীদ গোলাম কিবরিয়া পরিবার
No image found
আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:)
366167_164
বদি ও রানা মনোনয়ন পাচ্ছেন না : ওবায়দুল কাদের
46439263_2135215600035805_253926150236012544_n
জনগনের পাশেই থাকতে চাই- মনির খান
365942_166
প্রার্থীতা ঘোষণার পরই জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার শুরু
46436816_760370260975396_8562946945952251904_n
কুমারখালীতে ইট ভাটায় অভিযান
46480504_1376843535785513_3323404453368823808_n
ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত সামির পাশে কুষ্টিয়ার এসপি
লীগ
অবাক হবেন দেখলে বাদ পড়ছেন যেসব চেনা মুখ

গুরুত্বপূর্ণ খবর

    দেশ এখন স্বাধীন

    খাদিজা তুত তাহিরা

    ভোর বেলা রমজান দৌড়াচ্ছিল আর বলছিল, গ্রামবাসী পালাও, রাতের শেষ প্রহরে পাকিস্থানি সৈন্যরা হামলা চালিয়েছে। রহিম চাচার বাড়িতে ওরা আগুন দিয়েছে, দাউ দাউ করে জ্বলছে চাচার বাড়ি।খবর পেয়ে গ্রামবাসী আতঙ্কিত হয়ে পালাতে শুরু করলো। প্রীতি সাজিদকে বলল, সাজিদ তুমি কি শুনেছো?রহিম চাচার বাড়িতে পাকিস্থানি হায়েনারা আগুন দিয়েছে? শুনে সাজিদ কুড়িগ্রামের রাস্তা ধরে দৌড়াচ্ছিল আর বলছিল, ” সকলে সাবধানে থাকবেন, মিলিটারিরা হামলা চালিয়েছে, রিহম চাচার বাড়িতে আগুন দিয়েছে।

    ” মিলি নিজ গ্রাম হতে অন্য গ্রামে পালিয়ে যাবার কালে পথে অর্পার সাথে দেখা হল। সে বলল,” জান, গ্রামের কি অবস্থা?”অর্পা বলল, না সে জানেনা। মিলি বলল, গ্রামে মিলিটারি আক্রমন করেছে,বাড়ি ঘরে আগুন দিচ্ছে, মেয়েদের বিশেষ করে যুবতী মেয়েদের, যাকে পাচ্ছে তুলে নিয়ে যাচ্ছে তাদের ডেরায় আর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাচ্ছে।তাইতো আতঙ্কে আমি পালাচ্ছি।flag-01201318

    অর্পা তার বাড়ির দিকে হাটতে হাটতে বলল, শোন মিলি, আমরা যদি সবাই এভাবে ভয় পেয়ে পালাতে থাকি,তাহলে ওরা পেয়ে বসবে আর নির্যতনের মাত্রাও বাড়িয়ে দিবে।তারা আমাদের কাউকেই বাঁচতে দিবেনা। ওরা গ্রামকে গ্রাম নিশ্চিহ্ন করে দিবে।আমরা ঐ হায়েনাদের প্রতিরোধ করবো, তানাহলে আমরা আমাদের দেশ ও আমরা কেউই আস্ত থাকতে পারবো না। গড়ে তুলবো প্রতিরোধের দেয়াল।

    আমাদের যা আছে তাই নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। সাজিদ নিজে এবং তার বন্ধু সারোয়ার,বিল্টু ও সবুজকে বলে, এসো আমরা আমাদের মা বোনদের ইজ্জত আর দেশকে বাঁচাতে প্রয়োজনে নিজের প্রাণটাও বিলিয়ে দেই। এ ভাবেই সবার কন্ঠে বেজে উঠে একই সুর।

    মরতপ হলে মরবো, তবুও আমাদের দেশ কে স্বাধীন করে ছারবো। প্রীতি, মিলি ও নীপারাও ভাবলো যে, আমাদের ভায়েরা যদি যুদ্ধে যায়,তাহলে তাদের পাশে আমাদেরও থাকা দরকার। তাদের সাহস ও উৎসাহ দিব।

    প্রয়োজনে তাদের কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে যুদ্ধ করবো। আমাদের মান বাঁচাতে ঘরে বসে থাকলে চলবে না। প্রয়োজনে আহত যোদ্ধা ভাইদের সেবিকার মতো সেবা করবো, এভাবে সবাই একতা বদ্ধ হলো এবং জমিলার মাসির বাড়িতে সবাই অবস্থান নিলো।

     

     

     

     

    14 total views, 3 views today

    ঝিনাইদহে জেলা জামায়াতের আমির গ্রেফতার

    ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে নাশকতার মামলায় জেলা জামায়াতের আমির আলী আযম মোঃ আবু বকরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সকালে শহরের পানি উন্নয়ন বোর্ডের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।  ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা শহরে নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সকালে পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় অন্যরা পালিয়ে গেলেও গ্রেফতার করা হয় জেলা জামায়াতের আমির আলী আযম মোঃ আবু বকরকে। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ১০টি ককটেল ও বেশ কিছু জিহাদী বই। তার নামে ঝিনাইদহ সদর থানায় নাশকতার মামলা রয়েছে।

    এবিষয়ে জামায়েত Jhenidah-News-26.11.18...ইসলাম থেকে বলা হয়েছে, সামনে নির্বাচনকে সামনে রেখে এমন নাটক সাজিয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের আটক করা হচ্ছে।

    240 total views

    কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেল শহীদ গোলাম কিবরিয়া পরিবার

    নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ 46634248_764069590605463_6141007663602860032_nআসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭৮ কুষ্টিয়া -৪ কুমারখালী – খোকসা আসনে সমস্ত জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন শহীদ গোলাম কিবরিয়ার পৌত্র ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ।

    শহীদ গোলাম কিবরিয়া কুমারখালীর আওয়ামী লীগের গোড়া পত্তনকারী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের অত্যন্ত আস্থাভাজন সাবেক প্রাদেশিক পরিষদ, গণ পরিষদ ও জাতীয় সংসদ সদস্য ও কুমারখালী থানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ গোলাম কিবরিয়া ১৯৭০ ও ১৯৭৩ সালে একই আসন হতে এমপি নির্বাচিত হন। গোলাম কিবরিয়া ১৯৭৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর ঈদগাহে ঈদের নামাজ রত অবস্থায় আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। ১৯৭৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর শহীদ গোলাম কিবরিয়া আততায়ীর হাতে নিহত হবার পর তার বড় পুত্র আবুল হোসেন তরুন ১৯৭৫ সালে উপনির্বাচন ও ১৯৮৬ সালে সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। আবুল হোসেন তরুন ১৯৯৭ সালের ৯ মার্চ ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হ্রদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। তার মৃত্যুর পর তার সহধর্মিণী বেগম সুলতানা তরুন ২০০৮ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ৭৮, কুষ্টিয়া ৪ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। দীর্ঘ সময় পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের গোড়াপত্তন কারী পরিবার শহীদ গোলাম কিবরিয়ার পৌত্র এবং মরহুম আলতাফ হোসেন কিরণের পুত্র সেলিম আলতাপ জর্জ মনোনয়ন পেলেন।

    23,576 total views

    আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:)

    দিগন্ত ডেস্ক্রঃ হিজরি ১২ রবিউল আউয়াল। বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (স.) এর জন্ম ও ওফাত দিবস। ৫৭০ খ্রীষ্টাব্দের এদিনে মক্কার কুরাইশ বংশে বাবা আব্দুল্লাহ ও মা আমেনার ঘরে জন্মলাভ করেন তিনি। ইসলামের সুমহান দ্বীন প্রচার শেষে ৬৩ বছর বয়সে ৬৩২ খ্রীষ্টাব্দে ১১ হিজরির ঠিক এ দিনেই তিনি আল্লাহ প্রদত্ত রিসালাতের সব দায়িত্ব পালন শেষে আল্লাহ তায়ালার ডাকে সাড়া দিয়ে মাওলার সান্নিধ্যে গমন করেন।

    এজন্য দিনটি বিশ্বের মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। সর্বশেষ ও সর্বশেষ্ঠ নবীর জন্ম ও মৃত্যু একইদিনে হলেও মুসলিমরা দিনটিকে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:) বা জন্মউৎসবের দিন হিসেবে পালন করে থাকে। এ উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

    আজ বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উদ366344_16যাপনে বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মাসব্যাপী ইসলামী বই মেলার পাশাপাশি পক্ষকালব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারের পাশাপাশি বেসরকারি টেলিভিশন ও রেডিও দিবসটির যথাযোগ্য গুরুত্ব তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে। পত্রিকাগুলোতে বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করা হবে। দেশের মসজিদ-মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে।

    ঈদে মিলাদুন্নবীর গুরুত্ব ও তাৎপর্য : ঈদ, মিলাদ আর নবী তিনটি শব্দ যোগে দিবসটির নামকরণ হয়েছে। ঈদ অর্থ- আনন্দোৎসব, মিলাদ অর্থ- জন্মদিন আর নবী অর্থ ঐশী বার্তাবাহক। তাহলে ঈদে মিলাদুন্নবীর অর্থ দাঁড়ায় নবীর জন্মদিনের আনন্দোৎসব। ১২ রবিউল আউয়াল একই সাথে মহানবীর জন্ম ও মৃত্যু দিবস হলেও তা শুধু জন্মোৎসব হিসেবেই পালিত হয়।

    পৃথিবীর যেকোনো মানুষের মুত্যুই তাঁর পরিবার, সমাজ ও দেশের জন্য বিরাট শূন্যতা সৃষ্টি করে। কিন্তু মহানবীর মৃত্যু মানবসমাজ ও সভ্যতার কোনো পর্যায়ে কোনো শূন্যতার সৃষ্টি করেনি। যদিও তাঁর মৃত্যুর চেয়ে অধিক বেদনাদায়ক কোনো বিষয় উম্মতের জন্য হতে পারে না। তিনি প্রেরিত হয়েছিলেন সমগ্র পৃথিবীর জন্য আল্লাহর রহমত হিসেবে।

    চল্লিশ বছর বয়সে নবুওয়াতি লাভের পর দীর্ঘ ২৩ বছর হজরত মুহাম্মদ (সা:) কঠোর পরিশ্রম ও শত বাধা বিপত্তি মোকাবেলা করে ইসলামের সুমহান আদর্শ প্রচার করে গেছেন। তার প্রতিটি কাজ, কথা আমাদের জন্য আদর্শ। তার দেখানো পথেই পৃথিবীতে আসতে পারে শান্তি ও মানবতার মুক্তি। এরশাদ হয়েছে, আমি আপনাকে সমগ্র বিশ্বের জন্য রহমত হিসেবে প্রেরণ করেছি। (সূরা আল-আম্বিয়া : ১০৭)।

    256 total views

    বদি ও রানা মনোনয়ন পাচ্ছেন না : ওবায়দুল কাদের

    ঢাকা অফিসঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা বিতর্ক এড়িয়ে যেতে চাই, বিতর্কের বাইরে যেতে চাই। যে দুইজন সংসদ সদস্যকে নিয়ে বিতর্ক আছে, কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে আবদুর রহমান বদি ও টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনে আমানুর রহমান খান রানা তাদের মনোনয়ন দেয়া হয়নি।

    আজ মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

    আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, কক্সবাজারে বদিকে বাদ দিয়ে তার স্ত্রী শাহীনা আক্তার চৌধুরীকে এবং টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনে রানার বাবা আতাউর রহমান খানকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ঘরের সব কী অপরাধী? আপনি অপরাধী হলে আপনার মা-বাবা কে তার ভাগীদার? পরিবারের সবাই কী খারাপ লোক? বদির সম্পর্কে যে বিতর্ক আছে সে কী প্রমাণিত? আপনারা কেউ কী সেটা প্রমাণ করতে পেরেছেন?

    ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, সময়টা খুব সংবেদনশীল। রাজনৈতিক বিষয়ে আপনাদের সাথে আমার ভিন্নমত থাকতে পারে। কিন্তু তাই বলে কারও বক্তব্য ভিন্নভাবে প্রকাশ করবেন না। বক্তব্য বিকৃত করবেন না।366167_164

    224 total views

    জনগনের পাশেই থাকতে চাই- মনির খান

    মাহমুদ খানঃ

    বিএনপির চেয়ারপার্সন  বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে খুলনা বিভাগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকারের আগ এবং পর মুহূর্তে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের সাক্ষাৎকার দিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর) এর মনোনয়ন প্রত্যাশি কন্ঠশিল্পী মনির খান।

    এসময় কুষ্টিয়ার দিগন্তকে মনির খান বলেন- আমি গানে গানে যেমন মানুষের মন জয় করেছি, তেমনিই সততার সাথে আগামী সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে মানুষের জন্য কাজ করতেন চাই । দেশে সুস্থ সাংস্কৃতি, শিক্ষা, বেকারত্ব দূরকরন নিয়ে কাজ করতে চান জনপ্রিয় এই কন্ঠশিল্পী।

    অনেকেই মনে করছেন দেশে সুস্থ সাংস্কৃতির জন্য জন্য মনির খানকে অবশ্যই প্রয়োজন।

    মনির খান বলেন দলথেকে আশা করছি আমিই মনোনয়ন পাবো এবং সুস্থ নির্বাচন হলে অবশ্যই আমি নির্বাচিত হবো ইনশাল্লাহ।

    এবং নির্বাচিত হয়ে আমি জনগনের পাশেই থাকতে চাই।

    সুস্থ সাংস্কৃতির পক্ষে স্লোগান নিয়ে এগিয়ে চলা সামাজিক সংগঠন  মনির খান সংঘের সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম নয়ন বলেন দলমত নয় দেশে সুস্থ এবং ক্লিন সাংস্কৃতির জন্য মনির খানকে অবশ্যই দেশের মানুষ সংসদে দেখতে চাই।

    মহেশপুর এবং কোটচাদপুর ঘুড়ে দেখা গেছে সারা দেশের ন্যায় এখানেও মনির খানের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে ।

    এসময় ঝিনাইদহের বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন ।46439263_2135215600035805_253926150236012544_n

    608 total views

    প্রার্থীতা ঘোষণার পরই জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার শুরু

    দিগন্ত ডেস্ক্র: 365942_166আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনে সাবেক সংসদ সদস্য ও জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী পুনরায় প্রার্থী হচ্ছেন। তাকে প্রার্থী করার ব্যপারে ২০ দলীয় জোটের গ্রীন সিগনাল পেয়ে নেতা-কর্মীরা মাঠে তৎপর হতে শুরু করেছেন।

    কিন্তু, পুলিশ নেতা-কর্মীদের হয়রানি করছে বলে জামায়াতের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। কানাইঘাট থানা পুলিশ নেতা-কর্মী ও সমথর্কদের গ্রেপ্তার করতে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বাসা-বাড়ীতে অভিযান শুরু করায় আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। পুলিশী নির্যাতনের ভয়ে অনেকে বাসা-বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন।

     

    গত শনিবার পুলিশ শিবির নেতা শাকির আহমদ (২৬), জুলাই দাখিল মাদ্রাসার সুপার, জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত মোহাম্মদ আলী (৪৮) ও ব্যবসায়ী জামায়াত কর্মী আজমল শেখ (৪৮) এবং গত রোববার মাদ্রাসা শিক্ষক জামায়াত কর্মী শিব্বির আহমদ (৩৫), ফাযিল পরীক্ষার্থী শিবির কর্মী শাহাজাহান সাহেদ (২৫ ও জামায়াত কর্মী ছিদ্দিক আহমদ (৬৫) কে গ্রেপ্তার করে।

    থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়া জানান, গ্রেপ্তারকৃত জামায়াত শিবিরের ৬ নেতা-কর্মীকে বিশেষ ক্ষমতা আইনের একটি মামলার আসামী দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে পুলিশ জেল হাজতে পাঠিয়েছে। তার অভিযোগ, গ্রেপ্তারকৃত জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত।

    অপরদিকে উপজেলা জামায়াতের নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের মামলা নেই। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরও পুলিশ প্রতিদিন জামায়াত-শিবির ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের বাসা বাড়ীতে গিয়ে হয়রানি এমনকি শিক্ষক ও পরীক্ষার্থীদের গ্রেফতার করছে।

    তাদের অভিযোগ, নির্বাচনী মাঠে আওয়ামীলীগকে একতরফা সুযোগ করে দিতে পুলিশ উদ্দেশ্যেমূলকভাবে ইসির নির্দেশকে উপেক্ষা করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, হয়রানী ও নির্যাতন করে যাচ্ছে। এব্যাপারে তারা নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে

    272 total views

    কুমারখালীতে ইট ভাটায় অভিযান

    লিপু খন্দকার ঃ 46436816_760370260975396_8562946945952251904_n
    উপজেলার (কয়া) বর্তমান চরসাদিপুর ইউনিয়নের ঘোষপুর ভৈরবপাড়াতে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে অবৈধভাবে কৃষকের ফসলি জমি দখল পূর্বক ইট ভাটা স্থাপনের সংবাদ প্রকাশিত হবার পরের দিন অর্থাৎ আজ ১৯ নভেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খানের নির্দেশে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি নুর এ আলম সরেজমিন তদন্তে গিয়ে প্রকৃত অবস্থা অবলোকন করেন। এসময় স্হানীয় চেয়ারম্যান সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

    উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সরজমিন তদন্ত পূর্বক দুপক্ষের উপস্থিতিতে অভিযোগকারী মোঃ রজব আলীর জমি হারেজ এন্ড ব্রিকস এর স্বত্বাধিকারী শহিদ প্রামানিক গং এর দখলে থাকা অংশ দ্রুত গতিতে দখলমুক্ত করার নির্দেশ প্রদান করেন।

    এদিকে শহিদ প্রামানিক সাংবাদিকদের জানান, রজব আলীর ক্রয়কৃত সম্পত্তি ভৈরবপাড়া মৌজার আর এস ৪২ নং দাগে ৫৯.৮০ শতক এবং আর এস ৪৩ নং দাগে ৬৬.০০ শতক চৌহদ্দি অনুযায়ী যেভাবে রেজিস্ট্রি করা আছে সরেজমিনে “আমি যেকোন সময় যেকোন ভাবে বুঝে দিতে প্রস্তুত আছি”।

    ১৪৪ ধারা ভঙ্গের বিষয়ে তিনি বলেন আমার ভাটার হয়তো কিছু অংশ তার মধ্যে থাকতে পারে সেটা এ্যাসিল্যান্ড সারের নির্দেশ অনুযায়ী সরিয়ে নিব কিন্তু স্থায়ী কোন স্থাপনা হারেজের জমির উপর করা হয়নি বা ১৪৪ ধার ভঙ্গ করা হয়নি সে জানায় আইনের প্রতি সে শ্রদ্ধাশীল। অবৈধ টিনের (ড্রাম) চিমনি কেন ব্যবহার করছেন এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন হাওয়া ভাটা করার জন্য প্রায় ৬ লাখ ইটের প্রয়োজন হয় সেকারনে টিনের চিমনি করে ইট তৈরী করছেন।

    224 total views

    ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত সামির পাশে কুষ্টিয়ার এসপি

    এস এম জামাল : কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম তারভীর আরাফাত এবার এক অসহায় রোগীর পাশে দাঁড়ালেন।কুষ্টিয়া শহরের কালীশংকরপুর এলাকার বাসিন্দা ব্রেইন 46480504_1376843535785513_3323404453368823808_nটিউমারে আক্রান্ত ১০ বছরের শিশু রাফসান সামির উন্নত চিকিৎসার জন্য অর্থ সহায়তা প্রদান করেন তিনি।

    সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকের বিষয়টি জানতে পারেন পুলিশের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

    পরবর্তীতে খোঁজখবর নিয়ে তাকে সহযোগীতার হাত বাড়ান।

    সোমবার সকালে পুলিশ লাইনে ডেকে রাফসান সামির পিতার মো: রাজু আহম্মদের হাতে এই অর্থ প্রদান করেন।

    এসপি জানান, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেক্ই তার পাশে দাঁড়িয়েছি।

    প্রসঙ্গত, কুষ্টিয়ার এই একনিষ্ঠ সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা কুষ্টিয়ায় যোগদানের পর থেকেই আইনশৃঙ্খলায় রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে পুলিশের ভাবমুর্তি উজ্জল করেছেন।এতে করে সাধুবাধ জানিয়েছেন সর্বসাধারন।

    208 total views

    অবাক হবেন দেখলে বাদ পড়ছেন যেসব চেনা মুখ

    দিগন্ত ডেস্ক্রঃলীগ

    .৩০০ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রায় চূড়ান্ত
    .এখন জোট–মিত্রদের আসন চিহ্নিত করার কাজ চলছে
    .বাদ পড়ার আলোচনায় ডজনখানেক মন্ত্রী-সাংসদ
    .বাদ পড়ার বড় কারণ জনপ্রিয়তা হারানো
    .এ ছাড়া আছে দলীয় কোন্দল ও জোটের সমীকরণ

     

     

    আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তালিকা থেকে কারা বাদ পড়ছেন, এই আলোচনা এখন দলটির সব পর্যায়ে। গতকাল রোববার কয়েকজন কেন্দ্রীয় গুরুত্বপূর্ণ নেতার নাম বাদ পড়ার তালিকা আলোচনায় ছিল। এসব খবরে নেতাদের কেউ বলছেন ‘ঠিকই’ আছে। আবার কেউ কেউ বিস্ময় প্রকাশ করছেন। অন্যদিকে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা সংসদীয় বোর্ডের সদস্য ও কেন্দ্রীয় নেতাদের বাসা-অফিসে ভিড় করা অব্যাহত রেখেছেন।

    যাঁদের বাদ পড়ার বিষয়ে দলে জল্পনা-কল্পনা আছে, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাহারা খাতুন, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, সাবেক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু প্রমুখ। কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক অনেকটা ‘ঝুলন্ত’ অবস্থায় আছেন বলে দলে আলোচনা আছে।

    বাদ পড়ার পেছনে কারণ হিসেবে যেসব বিষয় এসেছে সেগুলো হচ্ছে জনপ্রিয়তা হারানো ও দলীয় কোন্দল। আবার জোট-মহাজোটের সমীকরণে পড়ে কারও কারও কপাল পুড়ছে বলে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী সূত্র জানিয়েছে।

    এসব বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাইয়ের ফোরাম সংসদীয় বোর্ডের সদস্যরা প্রকাশ্যে কথা বলতে রাজি হননি। বাদ পড়ার আলোচনায় থাকা নেতাদের অনেকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। যেসব আসনে বর্তমান সাংসদেরা বাদ পড়তে পারেন বলে আলোচনা আছে, সেসব আসনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের অনেকেই সবুজসংকেত পাওয়ার দাবি করেছেন। তবে তাঁরাও প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

    এ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের আনুষ্ঠানিক বৈঠক হয়েছে দুটি। কিন্তু অনানুষ্ঠানিকভাবে গণভবনে প্রায় প্রতিদিনই বসছেন সদস্যরা। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ৩০০ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রায় চূড়ান্ত। এ থেকে জোট ও মিত্রদের আসন চিহ্নিত করার কাজ চলছে। প্রায় ২০০ আসনে প্রার্থী নিশ্চিত হয়ে গেছে। ৪০-৫০ জন বাদের তালিকায় আছেন। কিছু আসনে একাধিক প্রার্থীর নাম রাখা হয়েছে। জোট ও মিত্রদের জন্য কোন কোন আসন ছেড়ে দেওয়া হবে, সেটা নিয়ে কাজ চলছে। আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী কারা বাদ পড়ছেন, কারা নতুন আসছেন, তা আজ সোমবার চূড়ান্ত হতে পারে।

    নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের সঙ্গে আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমের দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের, সংঘাতও হয়েছে অনেকবার। মাদারীপুর সদর আসনে বাহাউদ্দিন নাছিম মনোনয়ন পাচ্ছিলেন না শাজাহান খানের কারণে। ২০১৪ সালের নির্বাচনে পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ওঠার পর সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন বাদ পড়েন। এই আসনে সাংসদ হন বাহাউদ্দিন নাছিম। এবার এখানে মনোনয়নপ্রাপ্তির দৌড়ে আছেন বাহাউদ্দিন নাছিম, সৈয়দ আবুল হোসেন ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান (গোলাপ)। বাহাউদ্দিন যাতে মনোনয়ন না পান, সে বিষয়ে শাজাহান খান ও সৈয়দ আবুল হোসেন দুজনই তৎপর বলে দলীয় সূত্র জানায়। এই কোন্দলের জেরে আবদুস সোবহান সুযোগ পেতে পারেন বলে আলোচনা আছে।

    শরীয়তপুর-১ আসনে বি এম মোজাম্মেল হকও দুবারের সাংসদ। এই আসনে দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন। কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় দলাদলিতে মোজাম্মেল অনেকটাই কোণঠাসা। এ অবস্থায় তাঁর বাদ পড়া এবং ইকবাল হোসেনের মনোনয়ন পাওয়ার জোরালো আলোচনা আছে।

    শরীয়তপুর-২ আসনেও প্রার্থী পরিবর্তনের আলোচনা আছে। এই আসনের দীর্ঘদিনের সাংসদ সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী। এই আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম ও শওকত আলীর ছেলে খালেদ শওকত আলী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। শওকত আলীর ছেলের বিষয়ে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের আগ্রহ আছে বলে জানা গেছে। এনামুল হক শামীমও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

    সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর দলে গুরুত্ব হারিয়েছেন অনেক আগেই। ফারমার্স ব্যাংক কেলেঙ্কারির জন্য সমালোচিত হয়েছেন। বয়সও একটা বিবেচনায় আছে দলের নীতিনির্ধারকদের। এ জন্য এবার চাঁদপুর-১ আসন থেকে তিনি বাদ পড়তে পারেন বলে আলোচনা আছে। আরেক সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাহারা খাতুনেরও বাদ পড়ার আলোচনা আছে। এই আসনে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তাঁর মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা আছে।

    সাবেক মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু অসুস্থ। নরসিংদী-৫ (রায়পুরা) আসনে তাঁর শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রিয়াজুল কবিরের (কাওছার) নাম ইতিবাচক আলোচনায় আছে।

    বয়সের কারণে পাবনা-৪ আসনে ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এবং নওগাঁ-৪ আসনে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজউদ্দিন প্রামাণিক বাদ পড়তে পারেন বলেও আলোচনা আছে।

    নোয়াখালী-৪ আসনে একরামুল করিম চৌধুরী দুবারের সাংসদ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। প্রার্থী হিসেবেও বেশ শক্তিশালী। কিন্তু তাঁর কপাল পুড়তে পারে মহাজোটের কারণে। এই আসনে প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে আছেন যুক্তফ্রন্টের নেতা ও বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নান। যুক্তফ্রন্ট আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। সে ক্ষেত্রে একরামুল করিম চৌধুরীর ঝুঁকি আছে বলে মনে করছেন কেউ কেউ।

    অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তবে তাঁর নির্বাচন করার আগ্রহ খুব একটা নেই। রাজনীতি থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন বেশ কয়েকবারই। বরং নিজের ভাই এম এ মোমেন যাতে পান, সেদিকেই তাঁর তৎপরতা বেশি। সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুর আসনে সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী আবু সাইয়িদকে ফিরিয়ে আনা হতে পারে বলেও আলোচনা আছে।

    জাহাঙ্গীর কবির নানক ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার সাংসদ দুই মেয়াদের, প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন এর আগে​র মেয়াদে। তাঁর মনোনয়ন নিয়ে অনিশ্চয়তার কথা গতকাল দলের বিভিন্ন পর্যায়ে আলোচিত ​বিষয় ছিল। তবে তাঁর আসনে কে মনোনয়ন পাচ্ছেন, এ বিষয়ে কেউ নিশ্চিত নন। তিনি গতকাল গণভবনে গিয়ে নিজের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করেছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

    আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গতকাল সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের বলেন, দলীয় প্রার্থী প্রায় ঠিক করে ফেলা হয়েছে। এখন জোটের সঙ্গে আলোচনা শুরু করছেন। তাঁদের কারা কারা প্রার্থী হতে চান, সেই তালিকা চাওয়া হয়েছে। আজ সোমবারের মধ্যে তা পাওয়া যাবে। এরপর তাঁদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে বসতে পারেন। তিনি বলেন, চূড়ান্তভাবে জোটের সমীকরণ যেখানে দাঁড়াবে, সেখান থেকেই পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করা হবে। এ জন্য চার থেকে পাঁচ দিন সময় লাগতে পারে।

    (সূত্রঃ প্রথম আলো)

     

    192 total views

121,510 total views, 291 views today

প্রধান খবর

  • আজ ৯ ডিসেম্বর কুমারখালী হানাদার মুক্ত দিবস

    কুমারখালি প্রতিনিধি : ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর এই দিনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে কুমারখালীর মুক্তিযোদ্ধারা বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন এবং কুমারখালীকে হানাদার মুক্ত করেছিলেন।

    ১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর সকালে মুক্তিযোদ্ধারা পরিকল্পিত ভাবে কুমারখালীতে প্রবেশ করে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুন্ডুপাড়ার রাজাকারদের ক্যাম্প আক্রমণ করেন। রাজাকার কমান্ডার ফিরোজ বাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের তুমুল যুদ্ধ শুরু হয়।

    এ খবর কুষ্টিয়া জেলা শহরে অবস্থানরত পাক-সেনাদের কাছে পৌঁছালে তারা দ্রুত কুমারখালীতে এসে গুলিবর্ষণ করতে থাকলে পুরো শহর আতঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পড়ে। এবং মুক্তিযোদ্ধারা তাদের অkkkkপর্যাপ্ত অস্ত্র ও সংখ্যায় কম থাকায় শহর ত্যাগ করেন।

    এ সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকাররা কুমারখালী শহরজুড়ে হত্যাযজ্ঞ, অগ্নিসংযোগ ও লুটতরাজ শুরু করে।৭ ডিসেম্বরের যুদ্ধে পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা তোসাদ্দেক হোসেন ননী মিয়া শহীদ হন।
    পাকিস্তানী হানাদারদের হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়েছিলেন মুক্তিকামী বীর বাঙালী সামসুজ্জামান স্বপন, সাইফুদ্দিন বিশ্বাস, আব্দুল আজিজ মোল্লা, শাহাদত আলী, কাঞ্চন কুন্ডু, আবু বক্কার সিদ্দিক, আহমেদ আলী বিশ্বাস, আব্দুল গনি খাঁ, সামসুদ্দিন খাঁ, আব্দুল মজিদ ও আশুতোষ বিশ্বাস মঙ্গল।

    পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধারা সুসংগঠিত হয়ে ৯ ডিসেম্বর পাকবাহিনীর ক্যাম্পে (বর্তমানে কুমারখালী উপজেলা পরিষদ) আক্রমণ করেন।

    দীর্ঘসময় যুদ্ধের পর পাকিস্তানি বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণের কাছে টিকতে না পেরে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । ৯ ডিসেম্বরের যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে রাজাকার কমান্ডার খুশি মারা যায়।

    এইদিন কুমারখালী শহর হানাদার মুক্ত হওয়ার পর সর্বস্তরের জনতা এবং মুক্তিযোদ্ধারা রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল বের করেন।

    6,522 total views, 232 views today

আজকের খবর

জাতীয়

কুষ্টিয়ার খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক : খালিদ হাসান সিপাই.

নির্বাহী সম্পাদক : মাজহারুল হক মমিন।

বড় জামে মসজিদ মার্কেট, এন এস রোড কুষ্টিয়া।

০১৭১৬২৬৮৮৫৮, E-mail: Kushtiardiganta@gmail.com .