ঢাকাMonday , 6 June 2022
  1. epaper
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও অপরাধ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইতিহাস ঐতিহ্য
  6. ইসলামি দিগন্ত
  7. কুষ্টিয়ার সংবাদ
  8. কৃষি দিগন্ত
  9. খেলাধুলা
  10. গণমাধ্যম
  11. জনদূর্ভোগ
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. তথ্য প্রযুক্তি
  15. দিগন্ত এক্সক্লুসিভ

কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু, ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

Link Copied!

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে বাধা দেওয়ায় এবং পূর্ব শত্রুতার জেরে আমরান রশিদ নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে ১ জনের আমৃত্যু ও ২ জনের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তাদের ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে তাদের আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত।

সোমবার (৬ জুন) দুপুরে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় দেন।

আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার কাটদহর চর এলাকার জমশের আলীর ছেলে জিয়া।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার কাটদহর চর এলাকার আসান আলীর ছেলে মোস্তফা এবং একই উপজেলার শাকদহর চর এলাকার ইবাদত আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জিয়া ও জাহাঙ্গীর পলাতক রয়েছে। তবে রায় ঘোষণার সময় অপর যাবজ্জীবন কারদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মোস্তফা আদালতে উপস্থিত ছিলো। রায় ঘোষণার পর তাকে কুষ্টিয়া জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মিলন, আহসান, এবং জসিম নামের ৩ জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

আদালত এবং এজাহার সূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কাটদহর চর এলাকার বাদশা মাস্টারের ছেলে ইমরান রশিদ (২৮)। ২০০৪ সালের ২১ নভেম্বর রাতে পরিবারের লোকজনের সাথে খাবার খাওয়ার পর ইমরান রশিদ প্রতিবেশি চাচাতো ভাই আশরাফুলের বাড়িতে যান এং রাত ১১টার দিকে চাচাতো ভাইয়ের সাথে ওই বাড়িতেই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত একটার দিকে আসামিরা দলবেঁধে অস্ত্র নিয়ে ইমরানের বাড়িতে যান এবং ইমরানকে খোঁজাখুঁজি করেন। এ সময় ইমরানের পরিবারের লোকজন আসামিরদেরকে জানান ইমরান তার চাচাতো ভাইয়ের বাড়িতে ঘুমাচ্ছে। এ কথা শোনার পর আসামিরা ইমরানের চাচাতো ভাইয়ের বাড়িতে যান এবং ইমরানকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে গলা ও বুকে গুলি করে হত্যা করে।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা চরমপন্থী দলের সদস্য চাঁদাবাজী অপহরণ খুনসহ নান অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিল। তাদের অপরাধ কর্মকাণ্ডে বাধা দেওয়ায় এবং পূর্ব শত্রুতার জেরে ইমরানকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনার পরের দিন ২২ নভেম্বর নিহত ইমরান রশিদের ছোট ভাই হুমায়ুন রশিদ বাদী হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে মিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

দীর্ঘ তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে ২০০৫ সালের ২৯ অক্টোবর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। এর পর আদালত এ মামলায় ১৪ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে সোমবার (৬ জুন) রায় ঘোষণার দিন ধার্য করে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।