রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন

আলমডাঙ্গায় গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা, ভণ্ড পীরসহ গ্রেফতার ৩

জেলা প্রতিনিধি :চুয়াডাঙ্গা / ৯১ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ৩ মে, ২০২১, ৫:২৫ পূর্বাহ্ন

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় ভণ্ড পীরের আস্তানায় মুক্তা মালা (৩২) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (২ মে) রাতে উপজেলার এরশাদপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ওই গ্রামের সালাউদ্দীন ওরফে পান্টু হুজুর, গৃহবধূর স্বামী জহুরুল ইসলাম, শাশুড়ি জহুরা বেগম। এ ঘটনায় রাতে নিহত গৃহবধূ মুক্তা মালার বাবা মামলা করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মেহেরপুর গাংনী উপজেলার বাথানপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রশিদ দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। লোকমুখে আলমডাঙ্গার এরশাদপুর গ্রামের পান্টু হুজুরের কথা শুনে মেয়ে মুক্তা মালাকে নিয়ে চিকিৎসা নিতে সেখানে যান। একপর্যায়ে পান্টু হুজুরের খাদেম এরশাদপুর গ্রামের জহুরুল ইসলামের সাথে মুক্তা মালার প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। গত ৬-৭ মাস আগে তারা বিয়েও করেন। মুক্তা মালা স্বামীর সাথে পান্টু হুজুরের আস্তানায় থাকতেন। বিয়ের পর থেকে জহুরুল ইসলামের মা জহুরা বেগম পুত্রবধূ মুক্তা মালাকে মেনে নিতে পারেননি। তিনি মুক্তা মালাকে নানাভাবে অত্যাচার করতেন। তার ব্যাপারে ছেলে জহুরুল ও পান্টু হুজুরকে সব সময় ফুঁসলাতেন।

রোববার সকালে মুক্তা মালাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে পান্টু হুজুরের ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে তারা। কয়েক ঘণ্টাপর মরদেহ দরবারের নিজস্ব ভ্যানে করে মুক্তা মালার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় এবং ঘটনাটি কাউকে না জানাতে হুমকিও দেয়া হয়। দুপুরে মরদেহ নিয়ে আলমডাঙ্গা থানায় হাজির হন নিহতের বাবা আব্দুর রশিদ। পরে রাত ১০টার দিকে চারজনকে আসামি করে মামলা করেন তিনি।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবীর বলেন, নিহতের গলায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পান্টু হুজুরকে এরআগেও বেশ কয়েকবার ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানাসহ নানা অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর