বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন

পান্টি হাই স্কুল ও ডিগ্রি কলেজ মাঠে গড়ে উঠছে বাণিজ্যিক কেন্দ্র

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১২৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৯ পূর্বাহ্ন

খেলার মাঠে গড়ে উঠছে বাণিজ্যিক কেন্দ্র । দখলদারদের থাবায় পান্টি গ্রামের দুটি ঐতিহ্যবাহী খেলার মাঠ প্রায় হারানোর পথে । মাঠ রক্ষায় বরাবরই আদেশ-নির্দেশ দিয়ে থাকেন উচ্চ আদালত। এর পরও সরকারসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর দায়সারা আচরণে খেলার মাঠ হারাচ্ছে তার চরিত্র। খোলা মাঠে খেলার সুযোগ পাচ্ছে না শিশু-কিশোররা। এতে দেশ, জাতির দীর্ঘমেয়াদি চরম ক্ষতি হচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

শিশুর সুস্বাস্থ্যের জন্য খেলাধুলার বিকল্প নেই। এ জন্য খোলা মাঠের প্রয়োজন। সেই খেলার মাঠ নষ্ট করে ফেলছেন এক ধরনের প্রভাবশালীরা। এতে শিশুকে সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। কাজেই খেলার মাঠ রক্ষা করার দায়িত্ব সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের। কিন্তু তারা তা পারছে না। সর্বোচ্চ আদালতের হস্তক্ষেপ লাগছে।

বলা হয়ে থাকে শিশুর মানসিক বিকাশ ঘটানোর জন্য যেমন সুষম খাদ্যের প্রয়োজন, তেমনি শরীরচর্চারও প্রয়োজন। আর শরীরচর্চার জন্য পর্যাপ্ত খেলার মাঠ প্রয়োজন। এমনিতেই বাংলাদেশে পর্যাপ্ত খেলার মাঠ নেই। যেগুলো আছে তা-ও দখল হয়ে যাচ্ছে। খেলার মাঠ কমে যাচ্ছে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের ব্যর্থতা দায়ী। খেলার মাঠের দিকে নজর না দিলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য ভয়াবহ শারীরিক বিপর্যয় নেমে আসবে। মেধাশূন্যতা দেখা দেবে।

২০১৪ সালের ১৪ মে দেশের সব খেলার মাঠ ও পার্ক রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারকে নির্দেশ দেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। সরকারের পক্ষে স্থানীয় সরকার সচিব, পরিবেশসচিব, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, অর্থসচিব এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক দেশের সব জেলা প্রশাসককে (ডিসি) এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন।

অবৈধ স্থাপনা ও যথেচ্ছ ব্যবহারের কারণে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এবং আরেকটি পরিবেশবাদী সংগঠন ২০০৪ সালে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। ওই বছরের ২৪ এপ্রিল ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রতি হাইকোর্ট রুল জারি করেন। একই সঙ্গে হাইকোর্ট দেশের সব মহানগরী, বিভাগীয় শহর, জেলা শহর ও পৌর এলাকার সব খেলার মাঠ, উন্মুক্ত স্থান, উদ্যান রক্ষার জন্য প্রাকৃতিক জলাধার আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

কার্যত খেলার মাঠ রক্ষায় সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও প্রতিষ্ঠানগুলোর সদিচ্ছা না থাকায় হাইকোর্টের নির্দেশনা যথাযথভাবে পালিত হচ্ছে না। এমতাবস্থায় ক্রমেই বাড়ছে মাঠ দখলের প্রতিযোগিতা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর