রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন

পদ্মা-মেঘনা নামেই নতুন বিভাগ : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি / ৩৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১, ১:৩৪ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোনো জেলার নামে নয়, নতুন দুটি বিভাগ পদ্মা ও মেঘনা নদীর নামেই হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, কুমিল্লা ও তার আশপাশের জেলা নিয়ে মেঘনা বিভাগ এবং ফরিদপুর ও তার আশপাশের জেলা নিয়ে পদ্মা নদীর নামে বিভাগ করা হবে। গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি বা একনেক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি এ সময় প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন অনুশাসনও তুলে ধরেন। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বিফ্রিং করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রি ড. শামসুল আলম। এ সময় পরিকল্পনা সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য মামুন-আল-রশীদ, আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগের সদস্য মোসাম্মৎ নাসিমা বেগমসহ পরিকল্পনা কমিশনের অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, একনেক সভায় ১০ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের জন্য একটি প্রকল্প অনুমোদন হয়। এ প্রকল্পের ব্যয় হবে ১ হাজার ৫৩৮ কোটি ১০ লাখ টাকা। এ সময় কুমিল্লা ও ফরিদপুর বিভাগ নিয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কুমিল্লা ও তার আশপাশের জেলা নিয়ে মেঘনা বিভাগ এবং ফরিদপুর ও তার আশপাশের জেলা নিয়ে পদ্মা নদীর নামে বিভাগ করা হবে। গত অক্টোবরে আওয়ামী লীগের এক সম্মেলনে কুমিল্লাকে বিভাগ হিসেবে ঘোষণা করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি জানান কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। কিন্তু সেদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, কুমিল্লা বিভাগ নয়, তিনি নতুন বিভাগ করে নাম দেবেন মেঘনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফরিদপুর বিভাগ হবে পদ্মার নামে। আর কুমিল্লা বিভাগ হবে মেঘনা নামে। কুমিল্লা নাম দেয়া হবে না। কারণ, কুমিল্লার নামের সঙ্গে মোশতাকের নাম জড়িত। শেখ হাসিনা বলেন, ‘কু’ নাম দেব না। কুমিল্লা নামের সঙ্গে মোশতাকের নাম জড়িত। কুমিল্লার নাম নিলেই মোশতাকের নাম মনে পড়ে যায়। তাই কুমিল্লার নাম আসবে না। তা ছাড়া ফরিদপুরের নামেও বিভাগ দিচ্ছি না।’
এদিকে সভায় ডিজিটাল অর্থনৈতিক পরিবেশ তৈরিসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ হাজার ৪৪৭ কোটি ৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৩ হাজার ৬৮২ কোটি ২৮ লাখ টাকা, বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ১৫৩ কোটি ৮১ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক ঋণ থেকে ৩ হাজার ৬১০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর