ঢাকাMonday , 13 December 2021
  1. epaper
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও অপরাধ
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইতিহাস ঐতিহ্য
  6. ইসলামি দিগন্ত
  7. কুষ্টিয়ার সংবাদ
  8. কৃষি দিগন্ত
  9. খেলাধুলা
  10. গণমাধ্যম
  11. জনদূর্ভোগ
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. তথ্য প্রযুক্তি
  15. দিগন্ত এক্সক্লুসিভ

মাত্র এক সপ্তাহে যেভাবে বদলে গেলো মুরাদের জীবন!

Link Copied!

মাত্র এক সপ্তাহ আগেও ডা. মুরাদ হাসান ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতাধর প্রতিমন্ত্রী। কিন্তু আজ নিজের মুখ ঢাকার মতো কোনো জায়গাও খুঁজে পেলেন না তিনি।

নারী বিদ্বেষী বক্তব্য দিয়ে সময়ের ব্যবধানে মুরাদ একে একে মন্ত্রিত্ব, দলীয় পদ ও রাজনৈতিক আশ্রয় হারিয়েছেন; এমনটাই বিশ্বাস করেন রাজনীতি বিশ্লেষকরা।

তবে মন্ত্রিত্ব ও দলীয় পদ হারালেও মুরাদ এখনও একজন সংসদ সদস্য।

ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে নিজেকে আড়াল করার জন্য মুরাদ দেশ ত্যাগ করেন। তবে তার এ চেষ্টাও ব্যর্থ হয়েছে। কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে ঢুকার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে রবিবার বিকালে দেশে ফিরে এসেছেন তিনি।

হযরত শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, মুরাদ বিকাল ৫টার দিকে ই কে ৫৮৬ নামে এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে করে দেশে ফেরেন এবং সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনাল দিয়ে বের হন তিনি। এ সময় গণমাধ্যমের দৃষ্টি এড়াতে জ্যাকেটের হুডি ও মাস্ক দিয়ে নিজের মুখ ঢেকে রাখেন তিনি।

দুবাইয়ের বৈধ ভিসা না থাকায় তাকে দেশে ফিরতে হয়েছে। বিমানবন্দরের ওই কর্মকর্তা বলেন,  ‘এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে মুরাদের ফেরার কথা ছিল। কিন্তু দুবাইয়ে তাকে করোনার টেস্ট করাতে হয়েছে। এ জন্য তার ফিরতে দেরি হয়েছে।’

যখনই তিনি প্রস্থান করেন, প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে এমিরেটসের কর্তৃপক্ষ তাকে ঢাকায় ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

বিমানবন্দরের কর্মকর্তা জানান, এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ সাধারণত বাতিল করা যাত্রীদের তাদের পাসপোর্টসহ ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। ‘তাকেও আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

ওই কর্মকর্তার তথ্য মতে, বিমানবন্দরে আসার পর থেকেই মুরাদের মোবাইল ফোন চালু পাওয়া যায়। তবে তিনি কোনো ফোনকল ধরেননি।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টা ২০ মিনিটের দিকে এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে কানাডার উদ্দেশে দেশ ছাড়েন ডা. মুরাদ হাসান।

টরন্টোভিত্তিক বাংলা নিউজ পোর্টাল ‘দ্য বেঙ্গলি টাইমস.কম’ জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ১টা ৩১ মিনিটে (কানাডিয়ান সময়) টরন্টো পিয়ারসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান মুরাদ।

কানাডার অভিবাসন কর্মকর্তারা সাবেক প্রতিমন্ত্রীকে বাংলাদেশে নারীদের প্রতি অশালীন, শিষ্টাচারবহির্ভূত বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

নিউজ পোর্টালটি বলছে, কর্মকর্তারা তাকে জড়িয়ে বিভিন্ন ভিডিও, ছবি ও খবর দেখায় এবং সেগুলো সম্পর্কে জানতে চান।

এতে বলা হয়, মুরাদকে বাংলাদেশ ছেড়ে কানাডায় আসার কারণ সম্পর্কেও জিজ্ঞাসা করা হয়। কিন্তু তিনি কোনো ‘সন্তোষজনক উত্তর’ দিতে ব্যর্থ হন।

এরপর কানাডার বিমানবন্দর থেকে এমিরেটসের ফিরতি ফ্লাইটে মুরাদকে দুবাই ফেরত পাঠানো হয়।

মুরাদের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন
নারী বিদ্বেষী মন্তব্যের জেরে ঢাকা সাইবার ট্রাইব্যুনালে মুরাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করা হয়েছে।

রবিবার ঢাকা সাইবার ট্রাইব্যুনালে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওমর ফারুক বাদী হয়ে মামলার আবেদন জমা দেন।

সোমবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আশ-শামস জগলুল হোসেনের আদালতে আবেদনের শুনানি হতে পারে।

এছাড়া নারী বিদ্বেষী মন্তব্যের জেরে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট ও খুলনায় তার বিরুদ্ধে চারটি অভিযোগ করা হয়েছে।

মুরাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল শনিবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বলেন, রাষ্ট্র তার প্রতি ক্ষুব্ধ নয়।

জাতীয় প্রেসক্লাবে নিরাপদ সড়ক চাই-এর এক অনুষ্ঠানে বক্তব্যে তিনি বলেন, তবে কেউ যদি মুরাদের প্রতি ক্ষুব্ধ হয় তবে মামলা করতে পারে।

নারী বিদ্বেষী মন্তব্যের জেরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মঙ্গলবার ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন তিনি।

সম্প্রতি মুরাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় এক সাক্ষাৎকারে নারীদের প্রতি অসম্মানজনক মন্তব্যের জন্য বিভিন্ন মহলে সমালোচনার মুখে পড়েন। তার অশালীন মন্তব্য সম্বলিত বেশ কয়েকটি অডিও এবং ভিডিও গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

এছাড়া অভিনেতা ইমন ও অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির সঙ্গে মুরাদের দুই বছর আগের একটি ফোনালাপ সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেই অডিও ক্লিপে তিনি অভিনেত্রীকে ‘অপমানজনক মন্তব্য’, হুমকি এবং অশালীন প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

বুধবার মুরাদ হাসানের সংসদ সদস্য (এমপি) পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে একটি রিট আবেদন করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি করেন।

রিটে জামালপুর-৪ আসনের মুরাদ হাসানে কর্মকাণ্ডের বিষয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তও চাওয়া হয়েছে।

বিচারপতি মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে আগামী সপ্তাহে এই রিট আবেদনের শুনানি করতে পারেন।

এছাড়া একই দিন জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে মুরাদকে অব্যাহতি দিয়ে তার বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কাছে সুপারিশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

সূত্র-ইউএনবি

আমারসংবাদ

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।